সুন্দরবনে ৩ মাস পর্যটক প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা

সুন্দরবন
  © ফাইল ছবি

বিশ্বের সবচেয়ে বড় ম্যানগ্রোভ বন সুন্দরবনের নদী ও খালে আগামীকাল ১ জুন (শনিবার) থেকে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত তিন মাসব্যাপী মৎস্য আহরণে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে এই ৩ মাসে সুন্দরবনে পর্যটক প্রবেশের ওপরও নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে বন বিভাগ। ইতোমধ্যে সুন্দরবনে প্রবেশের জন্য সব পাস-পারমিট দেয়াও বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

খুলনা সার্কেলের বন সংরক্ষক মিহির কুমার দো বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, জুন থেকে আগস্ট- এই ৩ মাসকে সুন্দরবনের নদী-খালের মাছের প্রজনন মৌসুম হিসেবে ধরা হয়। এ ছাড়া এই সময়টি বন্য প্রাণীর জন্যও প্রজনন মৌসুম। সে কারণে মন্ত্রিপরিষদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ২০২১ সালে এই তিন মাস মাছ ধরা ও পর্যটক প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছিল। তারই ধারাবাহিকতায় এ বছরও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

তিনি জানান, দীর্ঘ ৩ মাস বনে পর্যটক না গেলে বনের জীববৈচিত্র ও বন্যপ্রাণী নিরুপদ্রব থাকবে। এ ছাড়া ঘূর্ণিঝড় রিমালের তাণ্ডবে সুন্দরবনে প্রাণী ও জীববৈচিত্রের যে ক্ষতি হয়েছে, সেটিও দ্রুত কাটিয়ে ওঠা যাবে।

এদিকে, নিষেধাজ্ঞা সামনে রেখে শুক্রবার (৩১ মে) সুন্দরবন থেকে লোকালয়ে ফিরে এসেছেন জেলেরা। এদিন সকালে সুন্দরবন সংলগ্ন কয়রা উপজেলার কপোতাক্ষ ও শাকবাড়িয়া নদীর তীরে গিয়ে দেখা যায়, সুন্দরবন থেকে লোকালয়ে ফিরে আসা শতাধিক মাছ ধরা নৌকা নদীর তীরে বেঁধে রাখা হয়েছে। কেউ কেউ ইতোমধ্যে নৌকা মেরামতের জন্য বেড়িবাঁধের ওপর উঠিয়েও রেখেছেন।


মন্তব্য