হিন্দু সেজে মন্দিরে যেভাবে লুকিয়ে ছিলেন এমপি আনার হত্যার দুই আসামী

আনার
  © ফাইল ছবি

ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনার হত্যার ঘটনায় পলাতক আসামি মোস্তাফিজুর রহমান ও ফয়সাল আলীকে খাগড়াছড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তারা সেখানে হিন্দু পরিচয়ে মন্দিরে লুকিয়ে ছিলেন বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার হারুন অর রশীদ। আজ বুধবার (২৬ জুন) বিকেলে খাগড়াছড়ির পাহাড়ি এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করে তাদের ঢাকায় আনা হয়।

ঢাকায় আনার পর সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার হারুন অর রশিদ। তিনি বলেন, সংসদ সদস্য আনার হত্যার অন্যতম এই দুই আসামি প্রায় ২৩ দিন পাহাড়ি এলাকার একটি কালী মন্দিরে আত্মগোপনে ছিলেন। সেখানে তারা নিজেদের হিন্দু হিসেবে পরিচয় দিতেন।

ডিবিপ্রধান বলেন, মন্দিরে আশ্রয় পেতে তারা হিন্দু নাম ধারণ করেন। স্থানীয়দের কাছে তারা বলতেন কালী মাতার কাছে থাকতে তাদের ভালো লাগে। তাই তারা মন্দির ছেড়ে কোথাও যাবেন না।

এক প্রশ্নের জবাবে ডিবিপ্রধান বলেন, সীতাকুণ্ডের একটি পাহাড়ের নিচে ‘পাতাল কালী মন্দির’ রয়েছে। সেখানে গিয়ে তারা পলাশ রায় ও শিমুল রায় নাম ধারণ করে হিন্দু সেজে দুজনেই কালী মন্দিরে থাকতেন। তারা রাতেও সেখানেই থাকতেন। বলতেন, আমরা মাকে বেশি ভালোবাসি, তাই মায়ের পাশেই থাকতে চাই।

এমপি আনার হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ডিবির কোনো চাপ আছে কি-না জানতে চাইলে ডিবিপ্রধান বলেন, না এখন পর্যন্ত কোনো চাপ নেই। যাদের বিরুদ্ধে সুস্পষ্ট প্রমাণ আছে শুধু তাদেরই আমরা আইনের আওতায় আনছি। কোনো নির্দোষ ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হবে না। মোস্তাফিজ-ফয়সালনকে রিমান্ডে নিয়ে আরও তথ্য-উপাত্ত বের করা হবে বলে জানান ডিবি প্রধান।


মন্তব্য