উচ্ছেদের আগেই সাদিক অ্যাগ্রো থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে গরু

সাদিক
  © সংগৃহীত

খাল ও সড়কের জায়গা দখল করে রাখায় মোহাম্মদপুর বেড়িবাঁধ এলাকার সাদিক অ্যাগ্রোতে অভিযান পরিচালনা করবে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি)। গতকাল বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে এমন খবর। তবে এই খবর পাওয়ার পর গত রাত থেকেই সাদিক অ্যাগ্রোর বেশ কিছু গরু সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। এছাড়া খাল ও সড়কের জায়গায় অবৈধভাবে দখল করে রাখা অস্থায়ী কিছু স্থাপনাও সরিয়ে নিয়েছে তারা।

আজ বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) সকাল থেকেই শুরু হয়েছে উচ্ছেদ অভিযান।

এর আগে উচ্ছেদ অভিযানের জন্য গতকাল বুধবার তিন প্লাটুন পুরুষ পুলিশ ফোর্স ও এক প্লাটুন নারী পুলিশ ফোর্স চেয়ে ডিএনসিসির সম্পত্তি বিভাগ থেকে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনারকে একটি চিঠি দেওয়া হয়।

ডিএনসিসির প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহে আলম স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে বলা হয়, ঢাকা উত্তর সিটির আওতাধীন অঞ্চল-৫-এর অন্তর্ভুক্ত মোহাম্মদপুরের বেড়িবাঁধসংলগ্ন আশপাশের অবৈধ স্থাপনাসহ খাল ও সড়কের জায়গায় সাদিক এগ্রো লিমিটেডের অবৈধভাবে নির্মিত স্থাপনা অপসারণ করা হবে।

এ বিষয়ে ঢাকা উত্তর সিটির অঞ্চল-৫-এর এক কর্মকর্তা বলেন, ‘আমাদের কাছে তথ্য আছে, তারা (সাদিক এগ্রো) রামচন্দ্রপুর খালের জায়গা ভরাট করে খামার করেছে। রাস্তার জায়গায় বেড়া দিয়ে গরুর অবৈধ হাট বসিয়েছিল। এর আগেও তাদের নোটিশ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু খামার কর্তৃপক্ষ এসব কোনো বিষয়ে তোয়াক্কা করেনি।’

নাম প্রকাশ না করার শর্তে অনিচ্ছুক ঢাকা উত্তর সিটির বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের এক কর্মকর্তা বলেন, খালের ওই অংশে অবৈধ দখলদার সাদিক অ্যাগ্রোর বিষয়টি করপোরেশনের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে একাধিকবার জানানো হয়েছিল। কিন্তু ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সাদিক এগ্রোর মালিক ইমরানের সখ্য রয়েছে।

উল্লেখ্য, সাদিক অ্যাগ্রো ফার্মের মালিক গবাদিপশুর খামারিদের সংগঠন বাংলাদেশ ডেইরি ফার্মারস অ্যাসোসিয়েশনের (বিডিএফএ) সভাপতি ইমরান হোসেন।

ঈদুল আজহার আগে সাদিক এগ্রো ১৫ লাখ টাকার ছাগল বিক্রির ভিডিও প্রকাশের পর থেকে একের পর এক তথ্য আসতে থাকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে।

এরপর একে একে বেরিয়ে আসতে শুরু করে এনবিআরের মতিউরের সম্পদের তথ্য। এবার উচ্ছেদ হতে যাচ্ছে সেই সাদিক এগ্রো।

স্থানীয় বাসিন্দা রকিবুল ইসলাম বলেন, অভিযান হবে এই খবর শোনার পর সাদিক অ্যাগ্রোর বেশ কিছু গরু-ছাগল গতরাতে সরিয়ে নিতে দেখেছি। এ ছাড়া রাস্তার ওপরে তাদের প্যান্ডেল করা ছিল, অস্থায়ী স্থাপনা ছিল সেগুলো তারা সরিয়ে নিয়েছে। 

সাদিক অ্যাগ্রোর আশপাশের এলাকার পরিস্থিতি বর্ণনা করে স্থানীয় আরেক বাসিন্দা মাসুদ রানা বলেন, এখানে যে একটি খাল ছিল এটা আর দেখা যায় না অবৈধ দখলের কারণে। এটা অনেকটা ভরাট হয়ে গেছে। অভিযান চলবে এমন খবরে সাদিক অ্যাগ্রোসহ আশপাশের অস্থায়ী অন্যান্য স্থাপনাও নিজেরা কিছু সরিয়ে নেয়ার কাজ করছে। 

এদিকে সকাল সাড়ে ১০টায় এ প্রতিবেদন লেখার সময় ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের অভিযান পরিচালনাকারী দল অভিযানস্থলে এসে উপস্থিত না হলেও ডিএনসিসির প্রচুর পরিমাণে পরিচ্ছন্নতা কর্মী উপস্থিত হয়েছেন। 

তাদের মধ্যে একজন খোরশেদ আলম বলেন, এখানে উত্তর সিটি কর্পোরেশনের অভিযান পরিচালনা করা হবে। যে কারণে আমাদের নির্দেশনা রয়েছে এখানে সময়মতো উপস্থিত হতে এবং অভিযানের পর জায়গাটি পরিচ্ছন্নতার কার্যক্রম পরিচালনা করার জন্য।

গরু বা স্থাপনা সরিয়ে নেওয়ার বিষয়ে কথা বলতে রাজি হননি সাদিক অ্যাগ্রোর কেউ।

ডিএনসিসি সূত্রে জানা গেছে, বেলা ১১টার পর যে কোনো সময় ডিএনসিসির পক্ষ থেকে মোহাম্মদপুর বেড়িবাঁধ এলাকায় অবস্থিত সাদিক অ্যাগ্রোতে অভিযান পরিচালনা করা হবে। অভিযানটি পরিচালনা করবেন ডিএনসিসির মোতাকাব্বীর আহমেদ এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহবুব হাসান।


মন্তব্য