ঢাকা জেলার ৬২ ইউনিয়নে শুরু হচ্ছে ক্যাশলেস স্মার্ট সেবা

স্মার্ট বাংলাদেশ
  © সংগৃৃহীত

স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনের লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ। আর এরই অংশ হিসেবে ক্যাশলেস স্মার্ট ইউনিয়ন পরিষদ সেবা চালু করেছে বর্তমান সরকার। এখন থেকে নিজস্ব ইউনিক আইডি ব্যবহার করে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে ঘরে বসেই হোল্ডিং ট্যাক্স প্রদান করতে পারবেন ঢাকা জেলার ৬২ ইউনিয়নের নাগরিকরা। 

বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) নিজ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ঢাকা জেলা প্রশাসক আনিসুর রহমান। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘আগামী শনিবার রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে ক্যাশলেস স্মার্ট সেবা কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।’

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ক্যাশলেস সেবার আওতায় ঢাকা জেলার ৬২ ইউনিয়নের নাগরিকরা তাদের নিজস্ব ইউনিক আইডি ব্যবহার করে বিকাশের মাধ্যমে ঘরে বসেই হোল্ডিং ট্যাক্স প্রদান করতে পারবেন। বিকাশের মাধ্যমে ট্যাক্স প্রদান করার সাথে সাথে ট্যাক্স প্রদানের রশিদ দেখতে ও ডাউনলোড করা যাবে। 

এছাড়াও স্মার্ট ইউনিয়ন পরিষদ সেবার আওতায় যেকোনো সনদের উপর প্রদত্ত কিউআর কোড স্ক্যান করে খুব সহজে সনদ/ ট্রেড লাইসেন্সের সঠিকতা যাচাই করতে পারছে ভূমি অফিস, পাসপোর্ট অফিস, ব্যাংকসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠান। 

স্মার্ট ইউপি, ঢাকা মোবাইল অ্যাপ অথবা ওয়েবসাইটের (smartup.gov.bd) মাধ্যমে একটি প্লাটফর্মে সকল ইউনিয়ন পরিষদের সেবাসমূহ প্রদানের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। বর্তমানে মোবাইল থেকেই বিকাশের মাধ্যমে হোল্ডিং ট্যাক্স পেমেন্ট করা যাচ্ছে।

এতে আরো জানানো হয়, এ উদ্যোগ বাস্তবায়নে ইতোমধ্যে ৬২ ইউনিয়নের সকল নাগরিকের ব্যক্তিগত তথ্য, খানা জরিপ তথ্য, আবাসন তথ্য, হোল্ডিং তথ্যের সমন্বয়ে প্রায় ৪ লক্ষ ডেটা এন্ট্রি করা হয়েছে। আদর্শ কর তফসিল ২০১৩ অনুযায়ী ধার্য করা হয়েছে কর। যার পরিপ্রেক্ষিতে রাজস্ব আদায় বৃদ্ধি পেয়েছে। নাগরিকগণ যাতে ঘরে বসে ট্যাক্স প্রদান করতে পারেন সে উদ্দেশ্যে গত ৩০ এপ্রিল বিকাশ লিমিটেডের সাথে চুক্তি স্বাক্ষর করেছে ঢাকা জেলা প্রশাসন।

এছাড়া ইউনিয়ন পরিষদের কর্মকর্তা/কর্মচারীদের সঠিক সময়ে উপস্থিতি, স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা, নাগরিক সেবা নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে ঢাকা জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে প্রতিটি ইউনিয়নে অনলাইন বায়োমেট্রিক হাজিরা মেশিন স্থাপন করা হয়েছে। যা কেন্দ্রীয়ভাবে তদারকি করতে পারবে উপজেলা এবং জেলা প্রশাসন। 

এ বিষয়ে ঢাকা জেলা প্রশাসক আনিসুর রহমান বলেন, ‘ইউনিয়ন পরিষদের অন্যান্য সকল সেবার ফি বিকাশের মাধ্যমে প্রদানের প্লাটফর্ম চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। এতে জনগণের সময়, খরচ ও ইউনিয়ন পরিষদে যাতায়াত কমবে। প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে এবং নাগরিক সেবা সহজীকরণের ক্ষেত্রে ক্যাশলেস স্মার্ট সেবা কার্যক্রম একটি অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে যাচ্ছে।


মন্তব্য