এবার যুক্তরাজ্যের নির্বাচন পর্যবেক্ষণে গেলেন বাংলাদেশের আবেদ আলি

যুক্তরাজ্যে
  © সংগৃৃহীত

যুক্তরাজ্যের সাধারণ নির্বাচনের বৃহস্পতিবার (৪জুলাই) ভোটগ্রহণ করা হয়। ইংল্যান্ড, স্কটল্যান্ড, ওয়েলস এবং উত্তর আয়ারল্যান্ডের ৪০ হাজার কেন্দ্রে ভোটাররা তাদের পছন্দের প্রার্থীদের ভোট দেন। স্থানীয় সময় সকাল ৭ টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলে। এবার বাংলাদেশের ইলেকশন মনিটরিং ফোরাম(ইএমএফ) প্রতিনিধি এই নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করেছে।

স্থানীয় বিদ্যালয়, কমিউনিটি হলের মতো ভবনগুলোকে পোলিং স্টেশন হিসেবে ব্যবহার করা হয়। ‘হাউস অফ কমন্স’ এর সাড়ে ছয়শো সদস্যকে নির্বাচনের জন্য প্রায় ৪ কোটি ৬০ লাখ ভোটার রয়েছে।

এবারের নির্বাচনেই প্রথমবারের মতো ইংল্যান্ড, ওয়েলস এবং স্কটল্যান্ডের ভোটারদের ভোট দেওয়ার জন্য ফটো আইডি বা শনাক্তকরণ ছবি দেখাতে হয়। এক্ষেত্রে পাসপোর্ট, ড্রাইভিং লাইসেন্স, বয়স্ক বা অক্ষম ব্যক্তির বাস পাস এবং ওয়েস্টার ৬০+ কার্ডসহ মোট ২২ ধরনের আইডি কার্ড গ্রহণযোগ্য ধরা হয়। অবশ্য উত্তর আয়ারল্যান্ডে ২০০৩ সাল থেকেই ভোট দেয়ার জন্য আইডি দেখাতে হয়। সেখানে নয় ধরনের আইডি কার্ড দেখানো যায়।

এদিকে উক্ত নির্বাচনে প্রত্যক্ষভাবে সকাল ৭ টা থেকেই বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ ভোটকেন্দ্র পর্যবেক্ষণ করেছেন বাংলাদেশের ইলেকশন মনিটরিং ফোরামের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবেদ আলী। তিনি জানান, খুবই শান্তিপূর্ণ ও সুশৃঙ্খলভাবে ভোটদান কার্যক্রম চলে। ভোটকেন্দ্রের পরিবেশ খুবই পরিচ্ছন্ন ও নিরাপদ। কিছু কিছু ভোটকেন্দ্রে নারী পুরুষ লাইনে দাঁড়িয়ে ভোটদান করতে দেখা যায়।পুলিশ বা অন্য কোন বাহিনীর প্রয়োজন হয় নি এবং রাত ১০ টা পর্যন্ত ভোটদানের সময় রয়েছে বলে অধিকাংশ ভোটার দিনের বেলায় নিজ নিজ ব্যবসা, অফিস তথা কাজকর্ম শেষ করে ভোটদান করেন ।

ভোট গণনার পর যে দলের কাছে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক এমপি (সাংসদ) রয়েছে সেই দলের নেতাকে প্রধানমন্ত্রী হওয়ার এবং সরকার গঠন করার জন্য আহ্বান জানান রাজা।


মন্তব্য