খাম নেওয়ার ভিডিও ভাইরাল, ওসি প্রত্যাহার

ওসি
  © সংগৃহীত

অফিসে বসে রাজশাহী মহানগরের চন্দ্রিমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব আলম এক ব্যক্তির সঙ্গে খাম আদান-প্রদান করছেন—এমন একটি ভিডিও ফাঁস হয়েছে। ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার পর সেই ওসিকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

শনিবার (৬ জুলাই) তাকে থানা থেকে প্রত্যাহার করে রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) সদর দপ্তরে সংযুক্ত করা হয়েছে।

আরএমপির মুখপাত্র জামিরুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, আরএমপি কমিশনার বিপ্লব বিজয় তালুকদার ওসি মাহবুব আলমকে থানা থেকে প্রত্যাহার করে সদর দপ্তরে সংযুক্ত করেছেন। এখন খাম লেনদেনের বিষয়টি তদন্ত হবে। এরপর পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

এর আগে, ফাঁস হওয়া ভিডিওতে দেখা গেছে, ওসি তার অফিসে নিজের চেয়ারে বসে রয়েছেন। সামনে থাকা এক ব্যক্তি তার কাছে একটি খাম চান। এ সময় ওসি তার ড্রয়ার থেকে খাম বের করে দেন। পরে ওই ব্যক্তি সেই খামে অর্থ পুরে খামটি এগিয়ে দিলে ওসি সেই খাম তার ড্রায়ারে ঢোকান।

এ সময় ওই ব্যক্তি ওসিকে উদ্দেশ করে বলেন, ‘মাহাবুব (ওসি) ভাই আপনি আমাকে চেনেন, জানেন, বোঝেন। আমি বিপদে পড়েছি বলে আপনার কাছে এসেছি। আমি সবসময় বিপদেই পড়ি। আরেকদিন এসে বলবো ও আমাকে কী পর্যায়ে পেরেশানির মধ্যে রেখেছে। যদি অফিশিয়ালি সলিউশন করেতে পারতাম আমি! সে জিএম সাহেবের কাছে ৪০ জন লোক নিয়ে গেছে রিমুভ ফ্রম সার্ভিস করার জন্য আমার বোনের। আমি আপনাকে কী বোঝাবো।’ ওসি কথাগুলোর ফাঁকে খামটি ড্রয়ারে ঢুকিয়ে ওই ব্যক্তির উদ্দেশে বলেন, ‘এর আগেরটাতেও আমি আপনাকে হেল্প করেছি।’

তবে পুলিশ পরিদর্শক মাহবুব আলম দাবি করেছেন, টাকা নয়; এক ব্যক্তির কাছ থেকে ছিনতাইকারীদের তালিকা নিয়েছেন খামে। এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ‘আমি পাবলিকের কাছ থেকে টাকা খাই না। কার সঙ্গে এ রকম কথা হয়েছে, সেটা মনে করতে পারছি না। তবে একজনের কাছ থেকে খামে ভরে ছিনতাইকারীদের তালিকা নিয়েছিলাম। ওই খাম ওইভাবেই আছে। সেই তালিকা নেওয়ার ভিডিও হতে পারে।’


মন্তব্য