ভারতে মুখ থুবড়ে পড়লো শাকিবের 'তুফান'

শাকিব
  © ফাইল ছবি

সুপারস্টার শাকিব খানের সিনেমা 'তুফান' দেশের প্রেক্ষাগৃহে দারুণ সাড়া ফেলেছে। সিনেমাটি রেকর্ড আয় করেছে বাংলাদেশে।  গত ৫ জুলাই ভারতে মুক্তি পাওয়া এই সিনেমা খুব একটা সাফল্য গড়তে পারছে না বলে জানা গেছে।

তবে বাংলাদেশের বক্স অফিসে সাড়া জাগানো 'তুফান' দুবাই, বাহরাইন, অস্ট্রেলিয়া, আমেরিকা, কানাডা, সিঙ্গাপুরসহ বেশ কিছু দেশে ভালো প্রতিক্রিয়া পেয়েছে।

বাংলাদেশে এই সিনেমার টিকিট পেতে যেখানে মারামারি লেগে যায়, সেখানে উল্টোচিত্র কলকাতার হলগুলোতে। রীতিমতো মাছি তাড়াচ্ছেন হলমালিকরা।

তুফানের দুটি গান ‘লাগে উরাধুরা’ এবং ‘দুষ্ট কোকিল’ এই বাংলাতেও হিট। তবে বক্স অফিসে তার প্রভাব পড়েনি। ব্যবসা নিয়ে এখনো কোনো আনুষ্ঠানিক ফিগার সামনে আসেনি। তবে প্রথম পাঁচ দিনে ভারত এ সিনেমা ব্যবসা করেছে মাত্র ৭ লাখ টাকা। অর্থাৎ ১০ লাখের গণ্ডিও পার করতে পারেননি শাকিব খান। যদিও বাংলাদেশ ও বিশ্বের অন্য প্রান্তের ব্যবসা মেলালে এই ছবি নাকি ৩৫ কোটির গণ্ডি পার করে ফেলেছে।  

এ বিষয়ে পরিচালক রায়হান রাফি ভারতীয় আনন্দবাজারকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, তুফান বড় বাজেটের ছবি। বাংলাদেশে ১০-১৫ দিনের মধ্যে সেই টাকা আমরা তুলতে পেরেছি।

পশ্চিমবঙ্গে তুফান ঝড় না ওঠা প্রসঙ্গে পরিচালক বলেন, হাওয়া ও সুড়ঙ্গ ছবির ক্ষেত্রে একটু ভালো ব্যবসা করেছে তুফান (বাংলাদেশের ছবি)। তুফান-এ সেটি আরও একটু ভালো হয়েছে। আমার বিশ্বাস— আগামী দিনে বাংলাদেশের ছবি পশ্চিমবঙ্গে আরও বেশিসংখ্যক দর্শককে আকর্ষণ করবে।

ওপার বাংলার একাধিক সংবাদমাধ্যমের দাবি— শাকিব খানের শেষ তিনটি সিনেমা (প্রিয়তমা, রাজকুমার) মেলালে ১০০ কোটি টাকা আয় করেছে। প্রিয়তমার প্রযোজনা সংস্থা ভার্সেটাইল মিডিয়ার দাবি—তাদের ছবি বিশ্বব্যাপী ৪২ কোটি টাকার গ্রস কালেকশন এনে দিয়েছে, যা রেকর্ড আয়। নির্মাতাদের আশা— এ আয়কে ছাপিয়ে যাবে তুফান।

তুফান সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন রায়হান রাফি। তুফান সিনেমাটির মূখ্য চরিত্রে রয়েছেন শাকিব খান। তাঁর বিপরীতে রয়েছেন মিমি চক্রবর্তী এবং নাবিলা।


মন্তব্য