চীন সফর শেষে দেশে ফিরলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী
  © সংগৃৃহীত

তিন দিনের চীন সফর শেষে ঢাকায় ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীদের বহনকারী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিশেষ ফ্লাইটটি রাত সাড়ে ১২টায় ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। চীনের স্থানীয় সময় সময় রাত ১০টা ৫ মিনিটে বেইজিং ক্যাপিটাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ছেড়ে আসে সেটি।

চীনের প্রধানমন্ত্রী লি চিয়াংয়ের আমন্ত্রণে সোমবার চার দিনের সফরে দেশটিতে যান শেখ হাসিনা। তার ফেরার কথা ছিল বৃহস্পতিবার। তবে এক দিন সময় এগিয়ে আনা হয়।বিষয়টি নিয়ে জল্পনার মধ্যে পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাছান মাহমুদ জানান, দেশে মেয়ে সায়মা ওয়াজেদ অসুস্থ থাকায় সফর সংক্ষিপ্ত করেছেন শেখ হাসিনা।

বেইজিংয়ে এই তিন দিনে ব্যস্ত সময় পার করেছেন শেখ হাসিনা। তিনি চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিংপিং ও প্রধানমন্ত্রী লি চিংয়াং এর সঙ্গে বৈঠকসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যোগ দেন।
এই সফরে দুই দেশের মধ্যে ২১টি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) সই হয় এবং সাতটি প্রকল্পের ঘোষণা আসে।

সফরের শেষ দিন সকালে গ্রেট হল অব দ্য পিপলে পৌঁছালে শেখ হাসিনাকে লাল গালিচা সংবর্ধনা দেয়া হয়। সফরের দ্বিতীয় দিন মঙ্গলবার সকালে এশিয়ান ইনফ্রাস্ট্রাকচার ইনভেস্টমেন্ট ব্যাংকের প্রেসিডেন্ট জিন লিকুন প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। এদিন সাং-গ্রি-লা সার্কেলে বাণিজ্য, ব্যবসা ও বিনিয়োগ সম্মেলনে যোগ দেন শেখ হাসিনা। সেখানে তিনি বাংলাদেশে বিনিয়োগ বাড়ানোর জন্য চীনা ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানান।

চায়নিজ পিপলস পলিটিক্যাল কনসাল্টেটিভ কনফারেন্সের (সিপিপিসিসি) চতুর্দশ জাতীয় কমিটির চেয়ারম্যান ওয়াং হুনিংয়ের সঙ্গেও শেখ হাসিনার দ্বিপক্ষীয় বৈঠক হয়।মঙ্গলবার বিকালে ঐতিহ্যবাহী তিয়েনআনমেন স্কয়ারে চীনের বিপ্লবী বীরদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন প্রধানমন্ত্রী। রাতে বেইজিংয়ে বাংলাদেশ দূতাবাস আয়োজিত নৈশভোজে অংশ নেন।

বুধবার সকালে দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধিদলসহ দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করেন। গুরুত্বপূর্ণ সমঝোতা স্মারক ও দলিল সই করেন। সোমবার বিকেলে বেইজিং পৌঁছেন বাংলাদেশের সরকারপ্রধান।


মন্তব্য