সেলুনে কাটা চুল দিয়ে ছবি বানান নাপিত হুসেইন ফালিহ

নাপিত
  © সংগৃহীত

জনপ্রিয় লেবানিজ লেখক কাহলিল জিবরান বলেছিলেন, প্রতিভাকে কখনও ঠেকিয়ে রাখা যায় না, কিছু সময়ের জন্য বিলম্বিত করা যেতে পারে মাত্র। প্রতিভা থাকলে তা কোনো না কোনোভাবে বিকশিত হবেই। এ কথা ফলে গেছে ইরাকের রাজধানী বাগদাদের একটি সেলুনের নাপিত হুসেইন ফালিহর বেলায়ও। ওই সেলুনে আসা ব্যক্তিদের চুল কাটার পর সেই চুল দিয়েই অসাধারণ সব ছবি বানান এই শিল্পী।

দীর্ঘদিন ধরে চুল মানুষের মাথার চুল কাটার কাজ করে যাচ্ছেন ফালিহ। এর মধ্যেই একদিন ছবি বানানোর ভাবনা আসে তার মনে। যেই ভাবা সেই কাজ। সেলুনে জমে থাকা চুল দিয়ে শুরু করেন ছবি বানানো। আর তাতে করে কাগজে আকৃতি পায় মানুষ, সিংহ, মুরগি, বাজপাখিসহ বিভিন্ন প্রাণীর অবয়ব। এ কাজে উৎসাহ দেন সেলুনে আসা অনেকেই।

হুসেইন ফালিহ বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, ‘প্রচণ্ড গরমেও আমি কাজের সময় ফ্যান বন্ধ রাখি। কেননা এতে চুল উড়ে যেতে পারে। আর চুল উড়ে গেলে আগের মতো অবয়বে নিয়ে আসা বেশ কঠিন।’

ছবি বানানোর ব্যাপারে হুসেইন ফালিহ বলেন, ‘কেউ সেলুনে এলে আমি প্রথমে তার চুলে পানি দিই। এরপর কাটতে শুরু করি। পরে ফ্লোরে পড়া চুল জমাই। তবে আমি সব ধরনের চুল জমাই না। যেটা পেইন্টিংয়ে কাজে লাগে সেগুলো রাখি।’

চুল দিয়ে এভাবে পেইন্টিং বানানোর কারণে আশপাশের অনেকেই ফালিহকে সবসময়ই উৎসাহ দেন বলে জানান তিনি। এ ব্যাপারে ফালিহ বলেন, ‘তারা আমাকে বলেন, তোমার চুল লাগলে নিও। চুল ফেলে দেওয়ার চেয়ে এভাবে পেইন্টিং করা তো দারুণ। অনেকে আবার আমাকে মজা করে বলেন, আরেহ! এই ছবির চুলগুলো তো আমার। আমাকে কত টাকা দেবে বলো?’

ফালিহের কাজ দেখে কামাল মোহি নামের একজন বলেন, ‘অভিনব সৃষ্টিকর্ম এটি। আর আমি হলাম পেইন্টিং আর পেইন্টারের ব্যবসায়ী। হুসেইন ফালিহর কাজ স্বতন্ত্র। এ কাজে তিনি বহুদূর এগিয়ে গেছেন।’

 বাগদাদে ঘরের মেঝেতে বসে ঘামতে ঘামতে প্রায়ই ছবি বানাতে দেখা যায় ফালিহকে। এভাবে ছবি বানিয়ে একদিন একটি আর্ট গ্যালারি করার স্বপ্ন তাঁর।


মন্তব্য


সর্বশেষ সংবাদ