বাংলাদেশিদের জন্য ভ্রমণ ফি কমালো ভুটান

ভুটান
  © ফাইল ছবি

বিশ্বের একমাত্র তামাকমুক্ত ও ৭০ শতাংশ বৃক্ষে আচ্ছাদিত দেশ ভুটান। দেশটিতে ভ্রমণে ইচ্ছুক বাংলাদেশিদের জন্য সুখবর। ভুটান সরকারের পর্যটন বিভাগ জানিয়েছে, তারা বাংলাদেশি পর্যটকদের জন্য তাদের নীতি সংশোধন করেছে। নতুন নীতি অনুযায়ী, বাংলাদেশি পর্যটকদের টেকসই উন্নয়ন ফি (এসডিএফ) হিসেবে শুধু ১৫ ডলার দিতে হবে। এটি ভারতীয় পর্যটকদের ওপর আরোপিত ফির সমান।

নতুন নীতিমালার আওতায় ১৫ হাজার বাংলাদেশি পর্যটক বার্ষিক ১৫ ডলারে খরচে ভুটান ভ্রমণ করতে পারবেন।

বাংলাদেশ ও ভুটানের মধ্যে রয়েছে বিশেষ সম্পর্ক। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এ সম্পর্ক আরও সুসংহত হয়েছে। গতকাল রোববার থেকে কার্যকর হয়েছে ভিসা নীতি।

বাংলাদেশি পর্যটকদের বিদ্যমান ভ্রমণ ফি কমাতে ভুটানের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছিলেন পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেন। গত ১৯ এপ্রিল ভুটানের রাজধানী থিম্পুতে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ ও ভুটানের তৃতীয় পররাষ্ট্রবিষয়ক পর্যালোচনা সভায় (এফওসি) এ অনুরোধ জানান পররাষ্ট্রসচিব।

প্রসঙ্গত, কোভিড বিধিনিষেধ উঠে যাওয়ার পর ২০২২ সালের সেপ্টেম্বর মাসে পর্যটকদের কাছ থেকে নেওয়া প্রতি রাতের জন্য ফি-এর পরিমাণ ৬৫ মার্কিন ডলার থেকে বাড়িয়ে ২০০ ডলারে উন্নীত করে। এর কারণ হিসেবে বলা হয় 'টেকসই উন্নয়ন ফি' হিসেবে নেওয়া এই অর্থ পর্যটকদের মাধ্যমে উৎপাদিত অতিরিক্ত অর্থ কার্বন নিঃসরণ কমাতে ব্যবহৃত হবে।
 
তবে গত বছর দেশটির সরকার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, প্রতি রাতের জন্য ১০০ ডলারের নতুন ফি হার সেপ্টেম্বর থেকে কার্যকর করা হবে এবং আগামী ৪ বছর বহাল থাকবে। 

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, কর্মসংস্থান সৃষ্টি, বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন এবং সামগ্রিক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে পর্যটন খাতের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার পরিপ্রেক্ষিতে এই সিদ্ধান্ত।

দেশটির সরকারি হিসাব অনুযায়ী, কয়েক প্রজন্ম বিচ্ছিন্ন থাকার পর ১৯৭৪ সালে পর্যটকদের জন্য দ্বার উন্মুক্ত করে ভুটান। সে বছর ৩০০ পর্যটন ভুটান ভ্রমণ করেন। ২০১৯ সালে সংখ্যাটি বেড়ে দাঁড়ায় ৩ লাখ ১৫ হাজার ৬০০ এবং তার আগের বছরের তুলনায় ১৫ দশমিক ১ শতাংশ বেশি।


মন্তব্য


সর্বশেষ সংবাদ