চোরের চিঠি

'আমাকে ক্ষমা করবেন; ১ মাসের মধ্যে সব ফিরিয়ে দেবো'

চুরি
  © প্রতীকী ছবি

চুরি করে চিরকুট লিখে যাওয়ার ঘটনা কখনও শুনেছেন? এমন অদ্ভুত ঘটনা ঘটেছে ভারতের তামিলনাড়ুর তুতিকোরিনে।

‘আমার বাড়ির একজন গুরুতর অসুস্থ। এই কারণে চুরি করছি। আমাকে ক্ষমা করে দিন। এক মাসের মধ্যে সব ফিরিয়ে দেব।’ চুরির পর এসব লিখেই নিজের করুণ অবস্থার কথা বর্ণনা করে চিঠি রেখে গেলেন চোর। আজব চুরির ঘটনার তদন্তে নেমে অবাক পুলিশও।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়ার টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়,  ৭৯ বছর বয়সী চিথিরাই সেলভিন নামের এক ব্যক্তির বাড়িতে ঘটেছে অদ্ভুত এই চুরির ঘটনা। সেলভিন এবং তাঁর স্ত্রী, দুজনেই অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক। তাঁদের চার সন্তান রয়েছে। তবে ওই বাড়িতে থাকেন বৃদ্ধ দম্পতিই। তাঁদের দৈনন্দিন কাজে সাহায্য করার জন্য বাড়িতে আসতেন এক গৃহকর্মী। 

পুলিশ জানায়, গত ১৭ জুন চেন্নাইয়ে ছেলের বাড়িতে যাবেন বলে নিজের বাড়ি তালা দিয়ে বেরিয়েছিলেন প্রবীণ দম্পতি। গত মঙ্গলবার সেলভানের বাড়িতে যান তাঁর গৃহকর্মী। সেখানে গিয়ে দেখেন, দরজার তালা ভাঙা। সঙ্গে সঙ্গে পুলিশে খবর দেন তিনি। পুলিশ এসে দেখে,ঘর থেকে একাধিক জিনিস উধাও। সেলভানের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, চুরি গিয়েছে অন্তত ৬০ হাজার রুপি। সেই সঙ্গে খোয়া গিয়েছে দুই জোড়া সোনার কানের দুল। সেইসঙ্গে চুরি গিয়েছে রুপার নুপুর।

চুরি হয়ে যাওয়া জিনিসের সন্ধান করতে গিয়ে একটি চিঠি দেখতে পান পুলিশকর্মীরা। সেখানে সবুজ রঙের কালিতে লেখা ছিল, ‘আমাকে ক্ষমা করবেন। কিন্তু চুরি করা সমস্ত কিছু এক মাসের মধ্যে ফেরত দিয়ে দেব। আসলে আমার বাড়ির একজন গুরুতর অসুস্থ।’

তামিল ভাষায় লেখা ওই চিঠি দেখে পুলিশের ধারণা, হয়তো চিকিৎসা করাতে গিয়ে সর্বস্বান্ত হয়ে পড়েছেন ওই চোর। তাই এমন অসাধু উপায়ে উপার্জনের চেষ্টা করেছেন। যদিও এই ঘটনায় এখনও কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।  


মন্তব্য