অবরোধ শুরুর আগেই ছয় বাসে আগুন

অবরোধ
  © সংগৃহীত

দ্বিতীয় দফায় আবারও বিএনপি-জামায়াতের ডাকা টানা ৪৮ ঘণ্টার অবরোধ কর্মসূচি শুরু হবে আজ রোববার ভোর ৬টা থেকে। এর আগে রাতে রাজধানীসহ সারাদেশে একের পর এক ছয়টি বাসে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। তবে সারাদেশে যোগাযোগব্যবস্থা নির্বিঘ্ন রাখতে ইতোমধ্যে মোতায়েন করা হয়েছে ৬৫ হাজার বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী।

রোববার (৫ নভেম্বর) সকাল থেকে সোমবার (৬ নভেম্বর) পর্যন্ত দুই দিন রেল স্টেশন, বাসস্ট্যান্ড, লঞ্চ ঘাট, সরকারি-বেসরকারি গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা এবং জনগুরুত্বপূর্ণ স্থানে তারা মোতায়েন থেকে নিরাপত্তা রক্ষার দায়িত্ব পালন করবে বলে জানিয়েছে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী।

শনিবার (৪ নভেম্বর) মাত্র আড়াই ঘণ্টার ব্যবধানে রাজধানীসহ সারাদেশে ছয়টি যাত্রীবাহী বাসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার (৪ নভেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে সাতটা থেকে রাত ১২টা নাগাদ এসব অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। তবে খবর পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে প্রতিটি বাসের আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছেন ফায়ার সার্ভিসকর্মীরা।

এদিন সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে রাজধানীর নিউমার্কেট থানাধীন গাউছিয়া মার্কেটের সামনে যাত্রীবাহী বাসে প্রথম আগুন দেয়ার ঘটনাটি ঘটে। মিরপুর লিংক পরিবহনের ওই বাসটিতে আগুন দেয়ার সময় বাসে যাত্রী থাকলেও কেউ হতাহত হননি। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

কাছাকাছি সময়ে সন্ধ্যা ৭টা ৩৫ মিনিটের দিকে এলিফ্যান্ট রোডে মাল্টিপ্ল্যান সিটি সেন্টারের সামনে গ্রিন ইউনিভার্সিটির একটি বাসে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। সিদ্দিকবাজার ফায়ার স্টেশনের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

এর কিছুক্ষণ পরই রাত ৭টা ৫৫ মিনিটের দিকে সায়েদাবাদ জনপথ মোড় ফ্লাইওভারের নিচে এক যাত্রীবাহী বাসে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। খবর পেয়ে পোস্তাগোলা ফায়ার স্টেশনের দুটি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

এরপর রাত রাত ১০টায় গুলিস্তান পাতাল মার্কেটের সামনে মনজিল এক্সপ্রেস পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাসে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। পরে সিদ্দিকবাজার ফায়ার স্টেশনের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

অন্যদিকে রাত সাড়ে ১১ টার দিকে ভোলার চরফ্যাশনে একটি বাসে আগুন ধরিয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা। ফায়ার সার্ভিসের নিয়ন্ত্রণ কক্ষের তথ্য অনুসারে চরফ্যাশন ফায়ার স্টেশনের দুটি ইউনিট আগুন নেভাতে সক্ষম হয়েছে।

সবশেষ অগ্নিসংযোগের ঘটনাটি ঘটে রাত ১১টা ৪২ মিনিটে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ সাইনবোর্ড এলাকায়। অনাবিল পরিবহন নামের একটি যাত্রীবাহী বাসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। ফায়ার সার্ভিসের সহকারী মিডিয়া কর্মকর্তা তালহা বিন জসীম এ তথ্য জানান।

উল্লেখ্য, সরকারের পদত্যাগের এক দফা দাবিতে এবং মির্জা ফখরুলসহ কেন্দ্রীয় নেতাদের মুক্তির দাবিতে রোববার সকাল থেকে ৪৮ ঘণ্টার অবরোধ কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি। তাদের শরিকরাও এই অবরোধ পালন করবে। পাশাপাশি জমায়াতে ইসলামীও আলাদা করে এই ৪৮ ঘণ্টা অবরোধ কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দিয়েছে।

এর আগে গত সপ্তাহের শেষ তিন দিন (৩১ অক্টোবর-২ নভেম্বর) টানা অবরোধ পালন করে বিএনপি-জামায়াত। তার আগে ২৯ অক্টোবর হরতাল পালন করে তারা।

গত ২৮ অক্টোবর রাজধানীতে বড় ধরনের সমাবেশ করে বিএনপি, জামায়াত ও আওয়ামী লীগ। সেদিন দুপুরের দিকে বিএনপির সমাবেশে আসা লোকজনের সঙ্গে কাকরাইল মোড়ের কাছে আওয়ামী লীগের সমাবেশগামী লোকজনের সংঘর্ষ শুরু হয়। পুলিশ সেখানে হস্তক্ষেপ করলে এক পর্যায়ে প্রধান বিচারপতির বাসভবনে হামলা হয় এবং বেশকিছু গাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। এরপর পুলিশ সাউন্ড গ্রেনেড ও উপুর্যুপরি টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে বিএনপির সমাবেশ ভণ্ডুল করে দেয়। এরপর সংঘর্ষ চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে এক পুলিশ সদস্যকে পিটিয়ে হত্যা করা হয় এবং পুলিশ হাসপাতালে হামলা চালানো হয়। সমাবেশ বানচালের প্রতিবাদে পরদিন ২৯ অক্টোবর বিএনপি হরতাল পালন করে। একদিন বিরতি দিয়ে ৩১ অক্টোবর থেকে টানা ৩ দিনের অবরোধ কর্মসূচি দেয়া হয়।

এদিকে, হরতালের দিন এবং পরবর্তী কয়েকদিনে মির্জা ফখরুল, মির্জা আব্বাস, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও মোয়াজ্জেম হোসেন আলালসহ বিএনপির শীর্ষ নেতাদের গ্রেপ্তার করে পুলিশ।


মন্তব্য