বৃষ্টি উপেক্ষা করেই বয়ানে চলছে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব

ইজতেমা
  © সংগৃহিত

তুরাগ তীরে শুরু হয়েছে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব। আর প্রথম দিনেই বৃষ্টির কারণে ভোগান্তিতে পড়েছেন লাখ লাখ মুসল্লি। তবে বৃষ্টি উপেক্ষা করেই বয়ানে মশগুল ছিলেন লাখো মুসল্লি।

বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) গাজীপুরের টঙ্গীর তুরাগ তীরে শুরু হয় বিশ্ব ইজতেমা। তবে সন্ধ্যা থেকে শুরু হয় বৃষ্টি। এ সময় ভোগান্তিতে পড়েন ময়দানে থাকা লাখ লাখ মুসল্লি। বৃষ্টি উপেক্ষা করেই তারা বয়ানের পাশাপাশি নিজেদের প্রয়োজনীয় কাজকর্ম সেরে নেন।

দুপুরের পর গাজীপুরের বিভিন্ন অঞ্চলে বৃষ্টি শুরু হয়। তখন ইজতেমার ময়দানে বৃষ্টি ছিল না। সন্ধ্যায় হঠাৎ করে ইজতেমা ময়দানে বৃষ্টি শুরু হয়। এ সময় বৃষ্টিতে মুসল্লিদের থাকার জায়গা ও রাস্তাসহ ময়দান কাদায় পরিণত হয়। ফলে মুসল্লিদের চলাফেরা বিভিন্ন কাজকর্মে কষ্ট হয়।

বিশ্ব ইজতেমায় অংশ নেওয়া মুসল্লি আবু তালেব বলেন, ময়দানে নিজ খিত্তায় সামিয়ানা টানিয়ে অবস্থান করছি। সন্ধ্যায় মাগরিবের নামাজ শেষে বৃষ্টি শুরু হয়। এতে আমাদের ভোগান্তি হয়েছে। রান্নাবান্না এবং থাকাসহ বিভিন্ন কাজ কর্মে ব্যাঘাত ঘটছে। তবুও ভোগান্তি নিয়ে শীর্ষস্থানীয় মুরুব্বীদের বয়ান শুনছি। ভোগান্তি হলেও আখেরি মোনাজাত পর্যন্ত এখানেই থাকব, ইনশাল্লাহ।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) বাদ জোহর বাংলাদেশের মাওলানা রবিউল হকের আম বয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব। যদিও বিশ্ব ইজতেমা শুরু হওয়ার কথা ছিল শুক্রবার (২ ফেব্রুয়ারি)।

বিশ্ব ইজতেমার মাওলানা জোবায়ের অনুসারী মুরুব্বী মুফতি জহির ইবনে মুসল্লী বলেন, শুক্রবার (২ ফেব্রুয়ারি) বিশ্ব ইজতেমা শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু লোকজন বেশি হওয়ায় এবং ময়দান পরিপূর্ণ হয়ে যাওয়ায় একদিন আগেই বৃহস্পতিবার বাদ জোহর আম বয়ানের মধ্য দিয়ে বিশ্ব ইজতেমার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়েছে। এর আগে বাদ ফজর আমলি বয়ান করেন হিন্দুস্তানের মাওলানা আহমদ লাট। বাদ আছর বাংলাদেশের মাওলানা ফারুক এবং বাদ মাগরিব বয়ান করেন হিন্দুস্তানের মাওলানা ইব্রাহিম দেওলা।

তিনি আরও বলেন, বৃষ্টির কারণে মুসল্লিদের কিছুটা ভোগান্তি হচ্ছে। তবুও মুসল্লিরা ধৈর্য সহকারে নিজ নিজ খিত্তায় বসে আমল করছে। আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে আগামী রোববার (৪ ফেব্রুয়ারি) শেষ হবে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব। আর ৯ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব। ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব পরিচালনা করবেন মাওলানা সাদ অনুসারীরা। এরপর ১১ ফেব্রুয়ারি (রোববার) আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে এবারের ২০২৪ সালের বিশ্ব ইজতেমার আনুষ্ঠানিকতা শেষ হবে।


মন্তব্য