উল্টো মার্কিন আইনের বিরুদ্ধেই মামলা করলো টিকটিক

টিকটক
  © ফাইল ছবি

সম্প্রতি চীনা ভিডিও শেয়ারিং অ্যাপ টিকটক নিষিদ্ধে আইন প্রণয়ন করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এবার আমেরিকায় নিষিদ্ধ হওয়া ঠেকাতে মার্কিন আইনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে টিকটক। গত সপ্তাহে কলাম্বিয়ার কোর্ট অব আপিলসে এই মামলা করা হয়।

টিকটকের অভিযোগ, নতুন আইনটি ভিডিও শেয়ারিং অ্যাপ এবং ১৭ কোটি মার্কিন ব্যবহাকারীর বাক-স্বাধীনতাকে খর্ব করবে। শুধু অনুমানের ওপর ভিত্তি করে আমেরিকায় টিকটক নিষিদ্ধের অপচেষ্টা চলছে বলেও জানানো হয়। 

এসময়, মার্কিন সরকার যে শর্ত দিয়েছে তা পূরণ করা বাণিজ্যিক ও প্রযুক্তিগতভাবে সম্ভব নয় বলেও মত দেয় চীনা অ্যাপটি।

এই মামলার কারণে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা ও বাক স্বাধীনতার ইস্যুটি সুপ্রিম কোর্টে নিষ্পত্তি হতে হবে। জনপ্রিয় এই মাধ্যমটিকে নিষিদ্ধ করা হলে সংবিধানের প্রথম সংশোধনী লঙ্ঘিত হবে বলে মামলায় ‘টিকটক’ উল্লেখ করেছে।

নিরাপত্তার স্বার্থে গত মাসে নতুন একটি আইন প্রণয়ন করে বাইডেন প্রশাসন। মার্কিন প্রশাসনের শঙ্কা, টিকটকের মাধ্যমে মার্কিন নাগরিকদের গোপন তথ্য চীনাদের কাছে চলে যাচ্ছে। 

এজন্য গত ২৩ এপ্রিল মার্কিন কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটে এ সংক্রান্ত বিলটি পাস হয়। পরদিন ২৪ এপ্রিল ওই বিলে স্বাক্ষর করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। যার ফলে এটি আইনে পরিণত হয়।
 
এই আইন অনুযায়ী, আগামী ৯ মাসের মধ্যে চীনা কোম্পানি যুক্তরাষ্ট্রের কোনো কোম্পানির কাছে টিকটক বিক্রি করে দেবে, তা না হলে, যুক্তরাষ্ট্রে টিকটক আ্যাপ ব্লক করে দেওয়া হবে। এ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করতে আরও অতিরিক্ত তিন মাস সময় নেবে যুক্তরাষ্ট্র।

ওই আইনে আরও বলা হয়, মালিকানা প্রতিষ্ঠান বাইটড্যান্স, মার্কিন কোনও প্রতিষ্ঠানের কাছে টিকটকের শেয়ার বিক্রি না করলে ২০২৫ সালের জানুয়ারিতে যুক্তরাষ্ট্রে অ্যাপটি নিষিদ্ধ করা হবে।


মন্তব্য