এআই থেকে অর্থের বিনিময়ে প্রেম করা শিখছেন চীনের অমিশুক তরুণ-তরুণীরা

চায়না
  © ফাইল ছবি

তথ্য-প্রযুক্তির এই যুগে এসে মানুষের জন্য বিভিন্ন কর্ম সহজ করে দিচ্ছে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (এআই)। লাজুক বা অমিশুক তরুণ-তরুণীদের জন্য নতুন দ্বারের উন্মোচন করলো কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা। দীর্ঘদিন ধরে সামাজিকভাবে একাকী (সিঙ্গেল) থাকা অমিশুক চীনা তরুণ-তরুণীরা প্রেমের সম্পর্কে উন্নতি করার জন্য এআই-চালিত এই 'লাভ কোচ' এর সাহায্য নিচ্ছেন।

সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, ডেটিংয়ে গিয়ে কীভাবে প্রেমিক/প্রেমিকার সঙ্গে কথা বলতে হবে, তা রীতিমতো পয়সা খরচ করে এআই লাভ কোচের কাছ থেকে শিখছেন এই অন্তর্মুখী চীনা তরুণ-তরুণীরা। অনেকেই আছেন ডেটিংয়ে গিয়ে কী বলবেন কিংবা ভালোবাসার মানুষটিকে কীভাবে মনভোলানো কথা (ফ্লার্ট) বলবেন, তা বুঝতে পারেন না। এরকম তরুণ-তরুণীরা 'রিজডটএআই' ও 'হং হং সিমুলেটর'-এর মতো অ্যাপ ব্যবহার করছেন। এসব অ্যাপ ব্যবহার করে শেখার চেষ্টা করছেন কীভাবে পছন্দের মানুষের সঙ্গে আলাপ জুড়বেন।

চায়না ইয়ুথ ডেইলি সোশ্যাল সার্ভে সেন্টার-এর ২০২৩ সালের এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, চীনের তরুণ-তরুণীদের বড় একটি অংশের মধ্যে সামাজিক মেলামেশার দক্ষতা কম। পাশাপাশি নিজেদের পরিচিত গণ্ডি ছেড়ে বেরিয়ে এসে নতুন বন্ধু বানাতেও তারা সমস্যায় পড়েন। ওই জরিপে চীনের ২ হাজার সিঙ্গেল যুবক-যুবতি অংশ নেন। এতে দেখা যায়, ৬০ শতাংশ অংশগ্রহণকারীই জানিয়েছেন যে তাদের ঘনিষ্ঠ বন্ধুর সংখ্যা দু’জনের কম।

রিজডটএআই অ্যাপের মাধ্যমে নার্ভাস তরুণ-তরুণীরা কাল্পনিক চরিত্রের সঙ্গে কথা বলতে পারেন। এ সময় তাদের জন্য ডেটিংয়ের আবহ তৈরি করে দেওয়া হয়। ব্যবহারকারীরা বিভিন্ন ভাষায়, নানা রকমের ডেটিংয়ের পরিবেশ বেছে নিতে পারেন। এই অ্যাপ ব্যবহারকারীকে জড়তা ভেঙে কাল্পনিক চরিত্রের সঙ্গে কথা বলতে বলে। যেমন, ব্যবহারকারীকে যদি বলে, 'ওকে একসঙ্গে কফি খাওয়ার দাওয়াত দাও', তখন অ্যাপটি উত্তর লিখে দেবে।

যেমন, এআইয়ের চরিত্র লিখবে, 'কফি খেতে ভালোই লাগবে, কিন্তু এখন আমার হাতে সময় নেই। ফাইনাল পরীক্ষার পড়াশোনা নিয়ে ভীষণ ব্যস্থ আছি। অন্য কোনো সময় হবে নিশ্চয়।' আরেকটি উদাহরণ দেওয়া যাক। ধরা যাক, ব্যবহারকারী ডেটিংয়ের জন্য এমন রেস্টুরেন্ট বেছে নিল যেখানে তার অপছন্দের খাবার পরিবেশন করা হয়। তার সঙ্গিনীর নাম ক্রিস্টিন। 

এ পরিস্থিতিতে অপছন্দের পরিবেশকে জয় করে ক্রিস্টিনের সঙ্গে কীভাবে কার্যকরী প্রেমালাপ জুড়া যায়, ব্যবহারকারীকে সেই প্রশিক্ষণ দেবে অ্যাপটি। এসব আলাপের ভিত্তিতে ব্যবহারকারীর পারফরম্যান্সের ওপর নম্বর দেয় রিজডটএআই। এছাড়া রিজডটএআইয়ে ব্যবহারকারীরা তাদের পছন্দের মানুষের সঙ্গে আলাপের স্ক্রিনশট আপলোড করতে পারেন। স্ক্রিনশট আপলোড করলে অ্যাপটি এর ওপর ফিডব্যাক দেয়; শিখিয়ে দেয় এ পরিস্থিতিতে কোন ধরনের ফ্লার্ট করা যায়।

রিজডটএআই অ্যাপটি এখন পর্যন্ত ৩.৫ মিলিয়ন বার ডাউনলোড হয়েছে। 'রিজ প্রো' ব্যবহারের জন্য সপ্তাহে ২.৯৯ ডলার খরচ করতে হয়। আর 'রিজ প্রো'র মাসিক সাবস্ক্রিপশন নিলে খরচ হবে ৯.৯৯ ডলার। প্রতি প্রান্তিকে অ্যাপটির ব্যবহারকারী ৩০ শতাংশ করে বেড়েছে। এরকম আরেকটি অ্যাপ হচ্ছে হং হং সিমুলেটর। রেগে যাওয়া প্রেমিক/প্রেমিকাকে মিষ্টি কথায় শান্ত করতে এই অ্যাপ ব্যবহার করা হয়। 

অনেকে যখন প্রেমের জন্য পরামর্শ পেতে এআইয়ের শরণ নিয়েছেন, তখন আরেকটি অংশ আরও কয়েক ধাপ এগিয়ে গেছে। অনেক তরুণ-তরুণী এখন এআই চ্যাটবটের সঙ্গেই প্রেম করছেন। রক্ত-মাংসের মানুষের সঙ্গে ডেটিং করতে গিয়ে হতাশ হয়ে চীনের তরুণীরা এখন 'ড্যান'-এর (ডু এনিথিং নাউ) মতো চ্যটজিপিটি চ্যাটবটের সঙ্গে প্রেম করছেন।

ড্যান চব্বিশ ঘণ্টাই মানসিক সমর্থন জোগায়, মিষ্টি কথা বলে মানব-প্রেমিকার মন ভোলায়। ফলে অনেক ব্যবহারকারীই ঘোষণা দেন যে তারা চ্যাটবটের সঙ্গে প্রেম করছেন। এমনই এক তরুণী ৩০ বছর বয়সি লিসা। সম্প্রতি চীনা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম প্ল্যাটফর্ম শিয়াওহংশুতে লিসা ঘোষণা দিয়েছেন, তিনি ড্যানের সঙ্গে সম্পর্কে আছেন। লিসা বলেন, তিনি ড্যানের সঙ্গে ডেটে গেছেন, তাকে নিজের মায়ের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিয়েছেন এবং যৌনতা নিয়েও কথা বলেছেন। 

উল্লেখ্য, চীনে জাতীয় বিবাহ এবং জন্মহার যখন কমে যাচ্ছে, সেই পরিস্থিতিতে ভার্চুয়াল প্রেমের প্রতি দেশটির তরুণ সমাজের আগ্রহ এভাবে বাড়ছে। দেশটিতে ২০২৪ সালের প্রথম তিন মাসে বিয়ের হার আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় ৮.২ শতাংশ কমেছে। যদিও বিয়ের হার বাড়ানোর জন্য চীন সরকার বিভিন্ন নীতিমালা হাতে নিয়েছে। সন্তান নেওয়ার জন্য নগদ অর্থ প্রণোদনা, বিবাহকালীন বাড়তি ছুটিসহ নানা সুবিধা দেওয়া হচ্ছে।


মন্তব্য


সর্বশেষ সংবাদ