প্রোটিয়াদের যেভাবে চমকে দিতে পারেন শান্ত-সৌম্যরা

টাইগাররা
  © সংগৃৃহীত

চলতি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে আলোচনার কেন্দ্রে রয়েছে নিউইয়র্কের নাসাউ কাউন্টি ক্রিকেট স্টেডিয়ামের উইকেট। অসম বাউন্স আর মন্থর গতির কারণে এই মাঠে বেশি সুবিধা পাচ্ছেন বোলাররা। ব্যাটারদের রীতিমত ত্রাহি অবস্থা। আজ এই মাঠে দক্ষিণ আফ্রিকাকে মোকাবিলা করবে বাংলাদেশ।

সে ম্যাচে মাঠে নামার আগে প্রোটিয়াদের হারানোর উপায় সতীর্থদের বাতলে দিয়েছেন বাংলাদেশের সাবেক অধিনায়ক তামিম ইকবাল। বাংলাদেশের বোলিং শক্তি দিয়েই প্রোটিয়াদের কাবু করতে হবে বলে মত তার।

শুরু থেকে বোলারদের উইকেট নেওয়ার জন্য ঝাঁপাতে হবে উল্লেখ করে তামিম বলেন, ‘আমার মনে হয় নতুন বলে বোলিংটা গুরুত্বপূর্ণ হবে। বিশেষ করে তাসকিনের ৪ ওভার এবং মুস্তাফিজ খুবই ‍গুরুত্বপূর্ণ।’

ক্রিকেটবিষয়ক সংবাদমাধ্যম ইএসপিএনক্রিকইনফোর সঙ্গে আলাপে তামিম বলেন, ‘আপনি তাদেরকে সুযোগ দিতে পারবেন না কারণ ডি কক যদি একটু সুযোগ পায় তাহলে সে আপনাকে ভোগাবে।’

নতুন বলে দলকে সাফল্য এনে দেওয়ার গুরুদায়িত্ব তাসকিনকেই নিতে হবে বলে মনে করছেন তামিম, ‘তাসকিন ভালো বোলিং করছে। সব মিলিয়ে নতুন বলে বাংলাদেশ ভালো বোলিং করছে। উইকেট থেকে বাড়তি সুবিধা পাওয়া যাবে। (নিউইয়র্কের মাঠে) আমরা যে খেলাগুলো দেখেছি তাতে অসম বাউন্স আছে। বাংলাদেশ যদি জিততে চায় তাহলে নতুন বল খুবই গুরুত্বপূর্ণ হবে।’

দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক পেরসার মরনে মরকেলও মনে করছেন, তাসকিন বোলিংয়ে ভালো শুরু এনে দিতে পারলে সাফল্য পাবে বাংলাদেশ, ’তাসকিন এমন একজন বোলার যে গতিময় বোলিং করতে পারে। টেস্ট ম্যাচের মতো লেংথ ধরে সে সঠিক জায়গায় বোলিং করে। এই উইকেটে সে সহায়তা পাবে।’

তাসকিনের পাশাপাশি মুস্তাফিজকে নিয়েও বাজি ধরছেন সাবেক এই প্রোটিয়া পেসার, ‘ফিজ বিশ্বমানের একজন বোলার। তার বোলিংয়ে সব ধরনের স্কিল ও বৈচিত্র্য আছে। আমি নিশ্চিত সাউথ আফ্রিকার ব্যাটাররা তার বিপক্ষে খেলতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করবে না।’

সুপার এইটের পথ প্রশস্ত করতে আজ বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ৮টায় নিউইয়র্কের নাসাউ কাউন্টি ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ।


মন্তব্য