শেষ মুহূর্তের নাটকীয়তায় জার্মানিকে কাঁদিয়ে সেমিতে স্পেন

ইউরো
  © ফাইল ছবি

ইউরোতে ফাইনালের আগেই যেন আরেক ফাইনাল দেখে ফেলল ফুটবল ভক্তরা। ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের কোয়ার্টার ফাইনালে জমজমাট এক লড়াই উপহার দিল জার্মানি-স্পেন। আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে জমে ওঠা ম্যাচে অবশ্য শেষ হাসি হেসেছে স্প্যানিশরা। ঘরের মাঠে মাঠভর্তি দর্শকদের সামনে জার্মানির সেমিফাইনালের স্বপ্ন ভেস্তে দিয়েছে ফুয়েন্তের শিষ্যরা।

স্টুটগার্টে অনুষ্ঠিত আসরের প্রথম কোয়ার্টার-ফাইনালে অতিরিক্ত সময়ে গড়ানো ম্যাচটি ২-১ গোলে জিতেছে স্প্যানিশরা। দলের জয়ের ম্যাচে স্পেনের হয়ে গোল করেন দানি ওলমো ও মিকেল মেরিনো। অন্যদিকে জার্মানির হয়ে একমাত্র গোলের দেখা পান ফ্লোরিয়ান উইর্টজ। 

ম্যাচে জার্মানির সুবিধা ছিল ঘরের মাঠে গ্যালারি ভর্তি সমর্থন। অন্যদিকে স্পেনকে চোখ রাঙাচ্ছিল স্বাগতিক কোনো দলকে নকআউট পর্বে না হারাতে পারার তিক্ত রেকর্ড। এমন ম্যাচে অতীত রেকর্ড ভুলে নতুন গল্প লিখল স্পেনিশরা। নিজেদের অতীত তিক্ততা ভুলে জয়ের হাসি হাসল স্পেন।

১২০ মিনিটের ম্যাচটিতে বল দখলে দুদলের দাপট ছিল প্রায় সমান। বল জার্মানির পায়ে ছিল ৫২ ভাগ সময় আর স্পেনিশরা রাখতে পেরেছে ৪৮ ভাগ সময়। এই সময়ে অবশ্য আক্রমণে এগিয়ে ছিল জার্মানিরাই। অতিরিক্ত সময় পর্যন্ত ২৩ বার স্পেনিশ শিবিরে আক্রমণ করে জার্মান। যার মধ্যে পাঁচটিই ছিল অনটার্গেট শট। কিন্তু লক্ষ্যে গিয়েছে কেবল একটি। বিপরীতে ১৮ বার শট নিয়ে দুই গোল পেয়ে যায় স্পেন।

প্রথমার্ধ শেষ হয় গোলশূন্য ড্র’তে। তবে দ্বিতীয়ার্ধের ৫ম মিনিটে ওলমোর গোলে এগিয়ে যায় স্পেন। বদলি হিসেবে নেমে জার্মানিকে স্তব্ধ করে স্পেনকে এগিয়ে নেন তিনি। সেই ব্যবধান ধরেই স্পেন যখন জয়ের দুয়ারে তখন ধাক্কা দেন ফ্লোরিয়ান উইর্টজ। ম্যাচের ঠিক ৮৯তম মিনিটে ফ্লোরিয়ান উইর্টজের গোলে সমতা ফিরিয়ে ম্যাচটাকে অতিরিক্ত সময়ে নেয় স্বাগতিকরা।

নির্ধারিত সময়ে খেলা ১-১ এ ড্র হলে খেলা গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। সেখানেও লড়াই চলে সমানে সমান। এমন মুহূর্তে আরেক বদলি খেলোয়াড় দিয়ে স্পেনের বাজিমাত। ম্যাচের সময় যখন ১১৯ মিনিট ঠিক তখনই গোলের দেখা পেয়ে যায় স্পেন। বদলি হয়ে নেমে স্কোরশিটে নাম লেখান মিকেল মোরেনো। মোরেনোর গোলে লিড ধরে বিদায় নেয় জার্মানি। আর স্পেন পায় সেমিফাইনালের টিকিট।

উল্লেখ্য, আগামী মঙ্গলবার (৯ জুলাই) আলিয়াঞ্জ অ্যারেনায় শেষ চারের ম্যাচে মাঠে নামবে স্প্যানিশরা। প্রতিপক্ষ হিসেবে তারা পাবে ফ্রান্স-পর্তুগাল ম্যাচের জয়ী দলকে।


মন্তব্য