রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে সুশাসনের নিমিত্তে অংশীজনের সভা অনুষ্ঠিত

রবি
  © সংগৃহীত

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে প্রতিষ্ঠিত রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে সুশাসন প্রতিষ্ঠার নিমিত্তে অংশীজনের সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার (২৮ মার্চ) বিকেল ৪টায় বিশ্বিবদ্যালয়ের অ্যাকাডেমিক ভবন-৩ এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

এতে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ শাহ্ আজম।এসময় উপাচার্য বিশ্ববিদ্যালয়ের  আদ্যোপান্ত তুলে ধরেন। এসময় তিনি বলেন, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭ম বছরে পদার্পণ করছে। দীর্ঘ এই সাত বছরে নবীন বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে অনেক ভালো অবস্থানে আছে রবি। দিন দিন আমাদের পরিবারের সদস্য সংখ্যা বাড়ছে। শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সহায়তায় রবির শিক্ষাকার্যক্রমকে সচল ও গতিমান করা হয়েছে সর্বাগ্রে। শিক্ষার্থীদের সাংস্কৃতিক মান ও দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টা গ্রহণ করা হয়েছে। রবি এখন পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের রূপলাভ করেছে। রবির আই-কিউ এসি সেলকে উজ্জীবিত করা হয়েছে এবং তা এখন পূর্ণ উদ্দ্যমে কাজ করছে। শিক্ষার্থীদের জন্য উন্নত মানের সেমিনার ভেন্যু তৈরি করা হয়েছে।

নতুন অ্যাকাডেমিক ভবন নেওয়া হয়েছে। সংগীত বিভাগের সাংস্কৃতিক পরিবেশনা পরিচালনার জন্য একটি উন্নত মানের স্টুডিও থিয়েটার তৈরি করা হয়েছে। অ্যাকাডেমিক ক্যাম্পাস-২ তে কম্পিউটার ল্যাব তৈরিসহ শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার সুবিধার্থে লাইব্রেরি সুবিধা সম্প্রসারণ করা হয়েছে রাত ৮টা পর্যন্ত। রবিকে সাংস্কৃতিক পুণ্যভূমি হিসেবে গড়ে তুলতে অত্যন্ত বৃহৎ আয়োজনে সকল দিবসগুলো ঐতিহ্যবাহী করে পালন করা হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের জন্য নিয়মিত সেমিনার, অফিসারদের জন্য নানা কর্মশালা আয়োজন করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে দুটি আন্তর্জাতিক এবং একটি জাতীয়মানের কনফারেন্স আয়োজন করা হয়েছে যেখানে দেশ-বিদেশের প্রখ্যাত ব্যক্তিবর্গের আগমন ঘটেছিল। 

গুচ্ছভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে দুবার এই প্রত্যান্ত অঞ্চলে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার আয়োজন সম্পন্ন করা হয়েছে। এতে পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল কাজগুলো করার অভিজ্ঞতা রবির হয়েছে। শুধুমাত্র একটি ক্যাম্পাসের অভাবে রবির ছন্দময় অভিযাত্রা শতভাগ দেখাতে পারছি না। এ বিশ্ববিদ্যালয়টি একজন নোবেলজয়ী সাহিত্যিকের নামে প্রতিষ্ঠিত। যে বিশ্ববিদ্যালয় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতে স্থাপিত হয়েছে এবং সেই বিশ্ববিদ্যালয়ের দুটি ব্যাচ ইতোমধ্যে স্নাতক সম্পন্ন করেছে। শিক্ষার্থীরা যেন নিজেদের জায়গায় ছন্দময় পদচারণা করতে পারে সেক্ষেত্রে সরকার নিশ্চয় সদয় হবেন।

রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে আমার দুইবছর তিন মাস অতিক্রান্ত হয়েছে। উপাচার্য বিশ্ববিদ্যালয়কে সামনে এগিয়ে নিতে সকলের সহযোগিতার হাত রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের দিকে বাড়িয়ে দেওয়ার আহ্বান জানান। 

এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর ড. ফিরোজ আহমদ, শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. ফখরুল ইসলাম, সকল বিভাগের চেয়ারম্যান, শিক্ষকবৃন্দ ও কর্মকর্তা-কর্মচারী, সাংবাদিকবৃন্দ, স্ব স্ব শ্রেণি প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।


মন্তব্য