বৈশাখের তীব্র দাবদাহেও ফুলের সৌন্দর্যে ববি ক্যাম্পাস

ববি
  © টিবিএম

বৈশাখের তীব্র তাপদাহের মধ্যে চোখ রাঙানো কৃষ্ণচূড়া, জারুল, সোনালু ফুলের সৌন্দর্যে ছেয়ে গেছে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস। জয়মুগ্ধতায় থমকে দাড়ায় তৃষ্ণার্ত পথিক।

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে বসেছে কৃষ্ণচূড়া, সোনালু ও জারুলের মেলা। ঋতুরাজ বসন্তের বিদায়ের শেষে চলছে গীষ্মের তীব্র দাবদাহ। তীব্র গরমে জীবনযাত্রা প্রায় স্থগিত, পুড়ছে প্রান প্রকৃতি। ঠিক তখনি বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে দেখা মিলছে জারুলের বেগুনি আভা , সোনালুর সোনালী মুগ্ধতা ও  কৃষ্ণচূড়ার রক্তিম সৌন্দর্য। তীব্র দাবদাহের মাঝেও শিক্ষার্থীদের যে মানসিক প্রশান্তি। নিজ ক্যাম্পাসের এমন মনকাড়া রংয়ের খেলা প্রমান করে প্রকৃতির নিলাভূমি এই ক্যাম্পাস। প্রকৃতির খেলার সাথে হাজারো রুপে সাজে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, রাঙিয়ে দেয় শিক্ষার্থীদের মন। ক্যাম্পাসের সাথে আরো দৃঢ় হয় শিক্ষার্থীদের বন্ধন। ক্যাম্পাসের বিভিন্ন ধরনের ফুল মুগ্ধতা ছড়াচ্ছে শিক্ষার্থীদের মনে। 

বিভিন্ন ঋতুতে বিভিন্ন রুপে সাজে এ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস। কখনো পলাশ, কখনো জারুল- সোনালু- কৃষ্ণচূড়া। কাঠফাটা রোদের মধ্যে দূর থেকে দেখলে মনে হয়, বৈশাখের রোদ্দুরের সবটুকু রং গায়ে মেখে নিয়েছে রক্তিম ফুলগুলো। চিরল চিরল সবুজ পাতার মাঝে যেন আগুনের ঝুড়ি। গ্রীষ্মের ঘামঝরা দুপুরে কৃষ্ণচূড়ার ছায়া প্রশান্তি এনে দেয় ক্লান্ত শিক্ষার্থীদের শরীরে। শিক্ষার্থীরা অবাক বিস্ময়ে উপভোগ করেন এই সৌন্দর্য।

বৈশাখের তীব্র রোদের তাপেও প্রকৃতি তার অপূর্ব রূপ হারায়নি। বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস সহজেই তার প্রমাণ। সবুজ পাতার ফাঁকে ফাঁকে ঝাঁক বেঁধে ফুটেছে জারুল, কৃষ্ণচূড়া, সোনালু ফুলের অপরূপ সমারোহ। বেগুনি রঙের জারুল ফুলের অপরূপ সৌন্দর্য ছুঁয়ে যাচ্ছে শিক্ষার্থীদের মন। কেউ কেউ ফুল হাতে তুলে ছবি তুলছেন, আবার কেউ বা ফুলের নিচে বসে প্রকৃতির অপার সৌন্দর্য উপভোগ করছেন। গাছের নিচে ঝরে পড়া জারুল ফুলের পাপড়ি যেন তৈরি করেছে এক বিমূর্ত নকশা।

পদার্থ বিজ্ঞানের শিক্ষার্থী আতিকুর রহমান বলেন,  সারা দেশ যেখানে তীব্র দাবদাহে পুড়ছে, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় সেখানে সবুজে সবুজময়। ফুলে ফুলে শোভিত গোটা ববি ক্যাম্পাস। ফুঠেছে সোনালু, ফুঠেছে জারুল, ফুটেছে রাধাচূড়া এবং চিরপরিচিত রক্তের মতো রঞ্জিত কৃষ্ণচূড়া আরো কত নাম না জানা ফুল। শুধু ফুল কেনো? বলা যায় মধুময় ক্যাম্পাস। ক্যাম্পাসে রয়েছে আম , রয়েছে সুস্বাদু ফল জামরুল, পেয়ারাসহ অনন্য ফল।
মৃত্তিকা ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী  আব্দুর রহমান রাহাত বলেন, বৈশাখের তাপদাহে যখন চারিদিকে হাসফাস অবস্থা, গরমের তীব্রতায় অতিষ্ঠ মানুষ-প্রাণীকূল ঠিক তখনই আমার প্রিয় ক্যাম্পাস বরিশাল তার বিশ্ববিদ্যালয়ে ছড়াচ্ছে ফুলের মুগ্ধতা। জলিল, তৌ রক্তলাল কৃষ্ণচূড়া, বেগুনীরাঙা জারুল কিংবা হলুদাভ সোনালু ফুলগুলো একটু প্রশান্তি দিচ্ছে ফুলপ্রেমী মানুষগুলোকে। বাহারি রুপে রঙের এই ফুলগুলো ক্যাম্পাসের সৌন্দর্যকে দিয়েছে এক নতুন মাত্রা। আর তাই গ্রীষ্মের কোন এক বিকেলে ঘুরে যাবার অনুরোধ রইলো এই ৫০ একরের ক্যাম্পাসটায়।

ক্যাম্পাসের ফুলের স্নিগ্ধতা সম্পর্কে মেহতাব হাসান বলেন,  গ্রীষ্মের প্রচণ্ড তাপদাহে যখন কৃষ্ণচুড়া, সোনালু, জারুল ফুল দেখি তখন মুগ্ধ হয়ে থমকে দাঁড়াতে বাধ্য হই। এই সময়ে কৃষ্ণচূড়া, সোনালু, জারুল গাছের নিচে স্নিগ্ধ ছায়ায় বসে থাকি এবং ফুলের সৌন্দর্য উপভোগ করি। বিশ্ববিদ্যালয় জুড়ে বিভিন্ন ধরনের ফুল যে রং ছড়িয়েছে, তা চোখে না দেখলে ভাষায় প্রকাশ করা সম্ভব নয়।


মন্তব্য


সর্বশেষ সংবাদ