পানি না ম্যাঙ্গো জুস বুঝার উপায় নেই, বিপাকে চবির শাহজালাল হলের শিক্ষার্থীরা

চবি
  © টিবিএম

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) শাহজালাল হলের এক্সটেনশন এবং মূল ভবনের ওয়াশ রুম গুলোতে ব্যবহারের পানিতে আয়রনের পরিমাণ এতো বেশি যে প্রথম দেখায় যে কেউ ম্যাঙ্গো জুস বা মেরিন্ডা ড্রিংকস মনে করতে বাধ্য হবেন।পান করার জন্য আলাদা পানির ফিল্টার থাকলেও গোসল করা, কাপড় ধোয়া এবং আনুষঙ্গিক কাজের জন্য প্রতিদিনই এই আয়রনযুক্ত পানি ব্যবহার করতে হচ্ছে। বিশেষ করে মূল ভবনের পিছনে এক্সটেনশনে অবস্থান করা প্রায় শতাধিক শিক্ষার্থী প্রতিনিয়ত এই সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন।

হলে অবস্থান করা বেশ কয়েক জন শিক্ষার্থী অভিযোগ করেন - দীর্ঘদিন যাবত পানির সমস্যায় ভুগছেন তারা। ওযু, গোসল এবং সারাদিন কাজে ব্যবহার করতে হয় টেপ থেকে আসা রঙিন পানি।ওয়াশ রুমে অতিরিক্ত পরিমাণে আয়রন,ময়লা এবং পানি নোংরা থাকায় নানা ধরনের স্বাস্থ্যঝুঁকির আশংকা রয়েছে। অতিদ্রুত এই সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ না নিলে যেকোনো সময় পানিবাহিত রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়ার শংকা প্রকাশ করেন কেউ কেউ।

এই ব্যাপারে শাহজালাল হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ডঃ জামাল উদ্দীন বাংলাদেশ মোমেন্টস কে জানান - আমি দীর্ঘদিন অসুস্থ ছিলাম কিছুদিন আগে ইন্ডিয়া থেকে এসেছি। আমার অবর্তমানে যিনি দায়িত্বে ছিলেন তিনি হল প্রশাসনের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যে নতুন উপাচার্য মহোদয়কে হলের বিভিন্ন সমস্যার কথা অবহিত করেছেন।তবে পানিতে আয়রনের বিষয় টি সমাধানের জন্য গত বছর ভর্তি পরীক্ষার সময় নতুন ট্যাংক স্থাপন করা হয়েছিল পাশাপাশি ওয়াশ রুম গুলো মেরামত করা হয়েছিল। নতুন করে সমস্যা দেখা দিলে সেটিও সমাধান করার চেষ্টা করা হবে।


মন্তব্য