ঈদের পরই ধার্য ছিল বিয়ের তারিখ,এর আগেই রহস্যজনক আগুনে তরুণীর মৃত্যু

সারাদেশ
  © সংগৃহীত

কিছুদিন আগে আকদ হয়েছে। ঈদুল ফিতরের পর বর দেশে ফিরলেই ধুমধাম অনুষ্ঠান করে শ্বশুরবাড়ি যাওয়ার কথা ছিল চাঁদনী আক্তার তাজিনের। কিন্তু বধূবেশে শ্বশুরবাড়ি যাওয়া হলো না তার। রহস্যজনক আগুনে প্রাণপ্রদীপ নিভেছে তার। 

শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইন্সটিটিউটে মারা যান তরুণী তাজিন। এর আগে শুক্রবার গভীর রাতে সিলেট নগরীর জালালাবাদ আবাসিক এলাকায় চাচার বাসায় অগ্নিদগ্ধ হন তিনি।
তাজিন সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলার পাঞ্জেপুরী গ্রামের মৃত সিরাজ উদ্দিনের মেয়ে।

জানা গেছে, অসুস্থ চাচাতো ভাইকে দেখতে শুক্রবার সিলেট নগরীর জালালাবাদ আবাসিক এলাকার ২৩/১ নম্বর বাসায় আসেন তাজিন। মধ্যরাতে বাথরুমে গেলে তাজিনের শরীরে আকস্মিক আগুন লেগে যায়। তার দুই হাত, গলা ও মুখমণ্ডল পুড়ে যায়। গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় প্রথমে তাকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও পরে ঢাকাস্থ শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইন্সটিটিউটে প্রেরণ করা হয়। গত শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সেখানে মারা যান তাজিন।

আগুনের খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে যায়। তারা বাথরুম ছাড়া আর কোথাও আগুনের আলামত পায়নি। বাথরুমে গ্যাস জমে অগ্নিদুর্ঘটনাটি ঘটছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে ফায়ার সার্ভিস।

তবে এয়ারপোর্ট থানার ওসি মোহাম্মদ নুনু মিয়া জানিয়েছেন, বাথরুমের পাশের রুমে দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে মশা মারার ব্যাট বিস্ফোরিত হয়ে অগ্নিদগ্ধ হয়েছে তাজিন। আহত হওয়ার পর দুর্ঘটনার কারণ সম্পর্কে পুলিশকে এমনটি জানিয়েছেন ওই তরুণী


মন্তব্য