চিকিৎসায় সন্তান জন্ম, আনন্দে ছাগলসহ ব্যান্ডপার্টি নিয়ে কবিরাজের বাড়িতে গৃহবধূ

রাজবাড়ী
  © সংগৃহীত

রাজবাড়ীতে কবিরাজের চিকিৎসায় সন্তান হয়েছে দাবি করেছেন রানু আক্তার (৩২) নামে এক গৃহবধূ। তাই মানত পূরণে ছাগল-মিষ্টি নিয়ে ঢাকঢোল বাজিয়ে কবিরাজের বাড়িতে আনন্দ উদযাপন করেছেন তিনি।

রোববার (২ জুন) দুপুরের দিকে গোয়ালন্দ উপজেলার উজানচর ইউনিয়নের রমজান মাতুব্বর পাড়ার কবিরাজ নাজমা বেগমের বাড়িতের এ ব্যতিক্রমী আয়োজন করা হয়।

রানু আক্তার ফরিদপুর সদরের গোয়ালের টিলা নিমাই সেকের পাড়ার নুরুজ্জামান শেখের স্ত্রী।

রানু আক্তার জানান, ১৫ বছর আগে তার গর্ভে এক মেয়ে সন্তান জন্ম নেয়। এরপর থেকে তার আর কোনো সন্তান হচ্ছিল না। এ নিয়ে তাদের স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে দাম্পত্য কলহ লেগেই থাকত। ঢাকায় বড় বড় ডাক্তার দেখিয়েও তিনি সন্তান জন্ম দিতে পারছিলেন না। বরং ডাক্তাররা জানাচ্ছিলেন, তিনি সন্তান জন্ম দেওয়ার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলেছেন। এরপর তিনি রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার রমজান মাতুব্বর পাড়ার কবিরাজ নাজমা বেগমের শরণাপন্ন হন। মানত করেন সন্তান হলে ছাগল-মিষ্টি নিয়ে ঢাকঢোল বাজিয়ে কবিরাজের বাড়িতে আনন্দ উদযাপন করবেন। নাজমার চিকিৎসায় সাত মাস আগে জন্ম দেন এক ফুটফুটে ছেলে সন্তান। তাই মানত পূরণে রোববার দুপুরে ছেলে ইসমাইলকে সঙ্গে করে ছাগল-মিষ্টি নিয়ে ঢাকঢোল বাজিয়ে কবিরাজের বাড়িতে আসেন তিনি। কবিরাজের হাতে-মুখে ভাত দেওয়ান ছেলেকে।

কবিরাজ নাজমা বেগমের বলেন, গত ১০ বছর ধরে জ্বীনের মাধ্যমে কবিরাজি করে আসছেন তিনি। তার চিকিৎসায় এ পর্যন্ত ২৫টি নিঃসন্তান দম্পতির ঘরে সন্তান জন্ম হয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন জটিল রোগের চিকিৎসা দেন তিনি।


মন্তব্য