সড়ক দুর্ঘটনায় সন্ধ্যায় সবাইকে কাঁদিয়ে গেলো তৌহিদ!  

কক্সবাজার
নিহত তৌহিদ বাবু (২১)  © সংগৃহীত

কক্সবাজারের রামুতে সড়ক দুর্ঘটনায় এক কলেজ ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। নিহত তৌহিদ বাবু (২১) শহরের টেকপাড়ার লুৎফর রহমানের ছেলে। সে রামু সরকারি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্র। মঙ্গলবার (২৫) জুন বিকেলে রামুর চা বাগান এলাকায় ঈদগাঁও থেকে আসা দ্রুতগামী সিএনজির সাথে তৌহিদের মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুমড়েমুচড়ে যায় মোটরসাইকেলটি, সড়ক থেকে ছিটকে রাস্তার পাশে পড়ে থাকে তৌহিদ। এসময় তৌহিদের মাথা ও শরীরে আঘাত লাগলে মুমূর্ষু অবস্থায় তার বন্ধু কক্সবাজার সদর হাসপাতালে আনলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তৌহিদকে মৃত ঘোষণা করে মরদেহ মর্গে প্রেরণ করেন।

তাকে উদ্ধার করা বন্ধু জানান, বিকেলে তৌহিদের মন খারাপ হলে দুই বন্ধু দুটি মোটরসাইকেলে ঘুরতে বের হন রামুর চা বাগানের দিকে। এসময় কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চা বাগান এলাকায় পৌছাঁলে উলটো দিক থেকে আসা দ্রুতগামী সিএনিজির সাথে সংঘর্ষ হয় তৌহিদের মোটর সাইকেলের। মুহুর্তেই তৌহিদের মাথায় গুরুতর আঘাত লেগে মৃত্যু বরণ করে।

তৌহিদের অপর বন্ধু জানান, বিকেল ৪টায় প্রতিদিনের মতো তৌহিদের সাথে তার ফোনে কথা হয়েছে। সন্ধ্যায় দেখা হবার কথাও ছিলো তাদের। কিন্তু এখন তৌহিদের দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ছুটে আসে কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, তৌহিদ দুপুরে পরিবারের সাথে ছিলেন। পরিবারের সদস্যদের সাথে সময় কাটিয়েছেন প্রতিদিনের মতো।

কলেজ ছাত্র তৌহিদের মৃত্যুর খবরে সন্ধ্যার পর থেকে মর্গে ভীড় করে তার সহপাঠী, বন্ধু, স্বজন ও পরিবারের সদস্যরা। তারা কেউ মানতে পারছে না একজন টগবগে তরুণ মুহুর্তেই এভাবে সবাইকে কাঁদিয়ে বিদায় নিবে। কান্না ও আহাজারিতে ভারি হয়ে উঠে হাসপাতাল প্রাঙ্গন। তৌহিদকে হারিয়ে একে অপরকে স্বান্তনা দেবার চেষ্টা করছে সকলে। কিন্তু কে কাকে স্বান্তনা দিবে এই বিদায়ে?


মন্তব্য