গঙ্গার পানি নিয়ে মমতার অভিযোগ মানতে রাজি নয় মোদি সরকার!

গঙ্গা
  © ফাইল ছবি

বাংলাদেশের সঙ্গে গঙ্গার পানি বণ্টন চুক্তির নবায়ন করা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ মানতে রাজি নয় ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। দেশটির কেন্দ্রীয় সরকারি সূত্র জানিয়েছে, এই চুক্তি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চিঠি লিখে যে অভিযোগ করেছেন, তা ঠিক নয়। খবর ডয়চে ভেলের।

সূত্রের দাবি, ২০২৩ সালের ২৪ জুলাই গঙ্গার পানি বণ্টন চুক্তির অভ্যন্তরীণ পর্যালোচনা করার জন্য একটি কমিটি গঠন করা হয়। সেখানে একজন প্রতিনিধি পাঠানোর জন্য ভারতের পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে অনুরোধ করা হয়েছিল।

২০২৩ সালের ২৫ অগাস্ট পশ্চিমবঙ্গ সরকার তাদের জানায় যে, সেচ ও জলপথ বিভাগের চিফ ইঞ্জিনিয়রকে তারা কমিটিতে প্রতিনিধি হিসাবে মনোনীত করছে।

সূত্র জানিয়েছে, ২০২৪ সালের ৫ এপ্রিল পশ্চিমবঙ্গ সরকারের সেচ ও জলপথ বিভাগের যুগ্ম সচিব কেন্দ্রকে জানান, আগামী ৩০ বছরে ফরাক্কা ব্যারেজের ডাউনস্ট্রিমের জন্য তাদের কত অর্থ লাগবে।

সূত্রের দাবি, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে বলছেন, তাকে না জানিয়ে ফরাক্কার পানি বণ্টন চুক্তির পুনর্নবিকরণ করা হয়েছে, তা ঠিক নয়।

সোমবার (২৪ জুন) প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে তিনি অভিযোগ করেছেন, গায়ের জোরে উত্তরবঙ্গকে পানি থেকে বঞ্চিত করার চক্রান্ত করা হয়েছে।

এদিকে তিস্তা নিয়ে মমতা ব্যানার্জির চিঠি ভারতের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

দিল্লি সফর নিয়ে আজ মঙ্গলবার (২৫ জুন) সকালে গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'মমতা ব্যানার্জির যে চিঠি সেটা তো ওনি লিখেছেন ওনার দেশের প্রধানমন্ত্রীকে। এটা তো তাদের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার। এখানে আমার তো কিছু বলা নাই। এটা সম্পূর্ণ ভারতের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার। এ ব্যাপারে আমার তো নাক গলানোর কোনো দরকারও নাই, কিছু বলার দরকার নাই। আমার সাথে সকলের সম্পর্ক ভালো। মমতা ব্যানার্জির সম্পর্কও খুব ভালো, আবার প্রাইম মিনিস্টার নরেন্দ্র মোদি—তাদের সঙ্গে সম্পর্ক ভালো। অন্যান্য সব দলের সঙ্গে আমার সম্পর্ক ভালো। আমি এটুকু বলতে পারি যে, ভারতের প্রত্যেকটা দল-মত নির্বিশেষে সকলের সঙ্গে আমার একটা সুসম্পর্ক আছে।'


মন্তব্য