কানাডা থেকে এসে স্বামীকে হত্যা করে নিরাপদে ফিরে গেলেন স্ত্রী!

খুন
  © ফাইল ছবি

এক লোমহর্ষক হত্যাকাণ্ডের ঘটনা সামনে এলো। রাজধানী ঢাকায় ভাটারা থানা এলাকার একটি অ্যাপার্টমেন্ট থেকে আরিফুল ইসলাম (৩০) নামে এক যুবকের অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

গতকাল শনিবার (১ জুন) সন্ধ্যায় ওই এলাকার মাটি প্রপার্টিজ নামে একটি অ্যাপার্টমেন্ট থেকে তার মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, আরিফুল ইসলাম জাপান প্রবাসী। তার স্ত্রী পারভীন আক্তার কানাডায় থাকতেন। গত ১৭ মে তারা দুজন ভাটারা থানার মাটি প্রপার্টিজ নামে অ্যাপার্টমেন্ট ভবনে বাসা ভাড়া নিয়েছিলেন। ১৫ দিন পর ওই বাসা থেকে আরিফুলের মরদেহ উদ্ধার করা হলো।

অ্যাপার্টমেন্টের সিসিটিভি ফুটেজ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ফুটেজে দেখা গেছে, ১৮ মে সকাল ৬টা ৩১ মিনিটে পারভীন আক্তার ওই অ্যাপার্টমেন্ট থেকে একা বেরিয়ে যাচ্ছেন।

মরদেহ উদ্ধারের সময় সেখান থেকে একটি চিরকুট ও বিয়ের কাবিননামা উদ্ধার করেছে পুলিশ।

পুলিশের ধারণা, স্ত্রী পারভীন আক্তার তাকে হত্যা করে কানাডায় চলে গেছেন। উদ্ধার করা চিরকুটে লেখা রয়েছে, ‘আমার জীবনের শান্তি নষ্ট করে দিয়েছে এই রেপিস্ট। ব্ল্যাকমেইলার সে। তার নিজের ইচ্ছায় আমার হাতে ধরা দিয়েছে। নিজের হাতে এই রেপিস্ট-ব্ল্যাকমেইলারকে মেরে শাস্তি দিলাম।’

বাড্ডা থানা সূত্রে জানা গেছে, ভাটারা থানার অন্তর্গত বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার সি-ব্লকের দুই নম্বর রোডের ১ নম্বর বাড়িতে দেশি-বিদেশি নাগরিকরা অনলাইনে বাসা ভাড়া নিয়ে থাকেন। গত ১৭ মে আরিফুল ও পারভীন স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দিয়ে দ্বিতীয় তলায় একটি অ্যাপার্টমেন্ট অনলাইন অ্যাপসের মাধ্যমে সাত দিনের পেমেন্ট করে ভাড়া নেন। শনিবার (১ জুন) মাটি প্রপার্টিজ থেকে ফোন করে পুলিশকে জানানো হয় দোতলার অ্যাপার্টমেন্টে একজন পুরুষের মরদেহ পাওয়া গেছে।

এরপর ভাটারা থানা পুলিশ ও অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) ক্রাইম সিন ইউনিট ঘটনাস্থলে যায়। ক্রাইম সিন পর্যবেক্ষণ করে সিআইডি জানায়, মরদেহের বুকে ও গলায় ছুরিকাঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

এ ঘটনায় ওই অ্যাপার্টমেন্টের সিসিটিভি ফুটেজ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সিসিটিভি ফুটেজে দেখা গেছে, ১৮ মে সকাল ৬টা ৩১ মিনিটে পারভীন আক্তার ওই অ্যাপার্টমেন্ট থেকে একা বেরিয়ে যাচ্ছেন।

পুলিশ সূত্রে আরও জানা গেছে, আরিফুল জাপানে থাকার সময় এক মেয়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। তার স্ত্রী পারভীন কানাডায় থাকেন। তিনি কানাডা থেকে এসে পরিকল্পিতভাবে আরিফুলকে হত্যা করে আবারও কানাডায় ফিরে গেছেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গুলশান বিভাগের বাড্ডা জোনের সহকারী কমিশনার (এসি) রাজন কুমার সাহা বলেন, শনিবার বিকেলে খবর পেয়ে অ্যাপার্টমেন্ট থেকে যুবকের অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। হত্যাকারীকে খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে।


মন্তব্য