দুই ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ হলেন হাসারাঙ্গা; কারণ যা জানা গেলো

হাসারাঙ্গা
  © ফাইল ছবি

মাঠে আম্পায়ারের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করে দুই ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছেন শ্রীলঙ্কার টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা। গত ২৪ মাসের মধ্যে ৫টি ডিমেরিট পয়েন্ট যুক্ত হওয়ায় এই নিষেধাজ্ঞায় পড়লেন তারকা এই অলরাউন্ডার।

গত বুধবার ডাম্বুলায় আফগানিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে মাঠে নেমেছিল শ্রীলঙ্কা। সে ম্যাচে রোমাঞ্চকর শেষ ওভারে কোমর উচ্চতার উপরে ‘বিমার’ ডেলিভারি চোখ এড়িয়ে গিয়েছিল লেগ আম্পায়ার লিন্ডন হ‍্যানিব‍্যালের।

তার এমন সিদ্ধান্তে ভীষণ ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন হাসারাঙ্গা। এরপর আম্পায়ারের সাথে মাঠেই দুর্ব্যবহার করে বসেন তিনি। হাসারাঙ্গা বলেছিলেন, ‘অন্য কাজ খোঁজা উচিত তার’। মূলত এই ঘটনার কারণেই দুই ম্যাচ নিষেধাজ্ঞা ভোগ করতে হবে তাকে।

শ্রীলঙ্কার লেগ স্পিন অলরাউন্ডার মূলত আইসিসির আচরণবিধির ২.৮ ধারা ভঙ্গ করেছেন। যে কারণে তাকে ম্যাচ ফি’র ৫০ শতাংশ জরিমানা করা হয়েছে এবং তিনটি ডি মেরেটি পয়েন্ট দেওয়া হয়েছে। সব মিলিয়ে ২৪ মাস বা দুই বছরের মধ্যে আটটি ডি মেরিট পয়েন্ট পেয়েছেন তিনি। এর আগে পাঁচটি ডি মেরিট পয়েন্ট পাওয়ায় বাংলাদেশের বিপক্ষে টি-২০ সিরিজে দুই ম্যাচ নিষিদ্ধ ছিলেন তিনি।

বাংলাদেশের বিপক্ষে তৃতীয় ওয়ানডে ম্যাচের ৩৭তম ওভারে আম্পায়ারের সঙ্গে বাজে আচরণ করেন হাসারাঙ্গা। আম্পায়ারের সিদ্ধান্তে খুশি হতে পারেননি তিনি। ক্যাপ খুলে ছুড়ে মারেন মাটিতে। ওই ঘটনায় ফিল্ড আম্পায়ার তার বিরুদ্ধে আচরণবিধি ভঙ্গের অভিযোগ আনেন। তখনই হাসারঙ্গা ও লঙ্কান টিম ম্যানেজমেন্ট  বুঝে ফেলে ডি মেরেট পয়েন্ট পেতে যাচ্ছেন এই লেগ স্পিনার। যার অর্থ নিষেধাজ্ঞা। 

আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী, কোন ক্রিকেটার ২ বছরের মধ্যে আটটি ডি মেরেট পয়েন্ট পেলে ৭.৬ ধারায় সেটি ৪টি নিষেধাজ্ঞা পয়েন্ট হিসেবে গণ্য হবে। যার অর্থ ওই ক্রিকেটারকে দুটি টেস্ট বা চারটি ওয়ানডে বা সম সংখ্যক টি-২০ ম্যাচে নিষিদ্ধ হতে হবে। 

এদিকে নিষেধাজ্ঞার কারণে বাংলাদেশের বিপক্ষে আসন্ন তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে খেলতে পারবেন না হাসারাঙ্গা। সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আগামী ৪, ৬ ও ৯ মার্চ মাঠে গড়াবে টি-টোয়েন্টি সিরিজের ম্যাচ।


মন্তব্য