জাবিতে ঘুরতে এসে মারধরের শিকার ড্যাফোডিলের দুই শিক্ষার্থী

জাবি
  © ফাইল ছবি

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) বান্ধবীকে নিয়ে ঘুরতে এসে মারধরের শিকার হয়েছেন ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটির দুই শিক্ষার্থী । এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা। 

রবিবার (২৮ এপ্রিল) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মীর মশারফ হোসেন হল থেকে বোটানিক্যাল গার্ডেন যাওয়ার রাস্তায় এ ঘটনা ঘটে। 

অভিযোগপত্র সূত্রে জানা যায়, গতকাল দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে মীর মশাররফ হোসেন হল থেকে বোটানিক্যাল গার্ডেন যাওয়ার রাস্তায় ড্যাফডিল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী রাকিবুল হাসান তার বান্ধবী সহ হেঁটে যাচ্ছিলেন। এসময় সাইকেলে করে পাঞ্জাবী পরিহিত একজন এসে তাদের প্রশ্ন করে, তারা কোথায় থেকে এসেছে। উত্তরে রাকিবুল বলেন বাইরে থেকে ঘুরতে এসেছি। তারপর অভিযুক্ত ব্যক্তি আবারও প্রশ্ন করেন 'তোর এখানে কেউ পড়ে? ' উত্তরে রাকিবুল বলেন, আমার ফ্রেন্ড পড়ে। কোন ব্যাচে পড়ে তা জানেন না। তবে বলেন প্রথম বর্ষে পড়ে। এই কথা বলার সাথে সাথে অভিযুক্ত ব্যক্তি রাকিবুলকে ৪-৫টা থাপ্পর মারেন এবং বলেন, তোদের এই রাস্তায় হাঁটার অনুমতি কে দিলো? তখন ভুক্তভোগীর বান্ধবী বলে,'ভাইয়া আমাদের দোষ কি? তখন অভিযুক্ত তার বান্ধবীকেও থাপ্পর মারে। পরে মীর মশাররফ হোসেন হলের অফিসের সিসি ক্যামেরাতে অভিযুক্ত ওই ব্যক্তিকে দুপুর ১২টা ৪২ থেকে ১২টা ৪৩ মিনিটে সাদা পাঞ্জাবী পরিহিত অবস্থায় সনাক্তকরণ করা হয়।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী রাকিবুল হাসান বলেন, আমি আমার বান্ধবীসহ মীর মোশারফ হোসেন থেকে বোটানিক্যাল গার্ডেন রাস্তায় হেঁটে যাচ্ছিলাম এবং প্রকৃতির ভিডিও করছিলাম। হঠাৎ পেছন থেকে সাদা পাঞ্জাবি পরা একজন শিক্ষার্থী এসে অকারনেই আমাদের গালিগালাজ করেন এবং বলেন এ রাস্তায় তোদের হাঁটার অনুমতি কে দিছে এবং কোনো অপরাধ না করা সত্ত্বেও আমাদের চড় থাপ্পর করেন। পরে আমি প্রক্টর বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। তদন্তসাপেক্ষে আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

তবে অভিযুক্তকে এখনও শনাক্ত করা যায়নি বলে জানিয়েছেন এ বিষয়ে তদন্তে দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষক বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও প্রক্টরিয়াল বডির সদস্য মনির উদ্দীন শিকদার।

তিনি বলেন, অভিযুক্তকে এখনও শনাক্ত করা যায়নি। তবে আমরা সিসিটিভি-ফুটেজ হাতে পেয়েছি এবং শনাক্ত করার চেষ্টা করছি এবং আশা করছি আজকে রাতের মধ্যেই শনাক্ত করতে পারবো।


মন্তব্য