ঢাবির সমাজকল্যাণ ইন্সটিটিউটটের ফিল্ড ওয়ার্ক ওরিয়েন্টেশন শুরু

ঢাবি
  © সংগৃহীত

সমাজকর্মে ফিল্ড ওয়ার্ক (মাঠ কর্ম) বিষয়ে বিভিন্ন দিকনির্দেশনা প্রদানের লক্ষ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সমাজকল্যাণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের ১৪ তম ব্যাচের শিক্ষার্থীদের নিয়ে দুই দিনব্যাপী ফিল্ড ওয়ার্ক ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রাম শুরু হয়েছে। 

আজ মঙ্গলবার (৭ মে) সকাল ৯ টায় ইন্সটিটিউটট মিলনায়তনে ওরিয়েন্টেশনের প্রথম ক্লাস শুরু হয়ে চলে দুপুর দুইটা পর্যন্ত। আগামীকাল বুধবার দ্বিতীয় ক্লাস অনুষ্ঠিত হবে।

ওরিয়েন্টেশনে বক্তারা সমাজকর্মের শিক্ষার্থী হিসেবে ফিল্ড ওয়ার্ক বিষয়ে দক্ষতা ও জ্ঞান অর্জনের জন্য নানা দিকনির্দেশনা প্রদান করেন। পাশাপাশি কেউ কেউ বাংলাদেশে সমাজকর্ম পেশার স্বীকৃতি না থাকা এবং এর ফলে বাস্তব জীবনে সমাজকর্ম পেশার নানা চ্যালেঞ্জ নিয়ে আলোকপাত করেন। সেই সাথে এসব চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় একজন সমাজ কর্মের শিক্ষার্থী হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে ফিল্ড ওয়ার্ক কতটা জরুরি সেসব বিষয় তুলে ধরেন।

ঢাবির সমাজকল্যাণ ইন্সটিটিউটটের ফিল্ড ওয়ার্ক ওরিয়েন্টেশন শুরু

ওরিয়েন্টেশনের উদ্বোধন করেন ইন্সটিটিউটটের পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. গোলাম আজম। তিনি তার বক্তব্যে বাস্তব জীবনে শিক্ষার্থীদের জন্য ফিল্ড ওয়ার্ক কতটা জরুরি তা তুলে ধরেন। পাশাপাশি এর মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের একজন দক্ষ সমাজকর্মী হয়ে ওঠার ওপরে তিনি জোর তাগিদ প্রদান করেন।

সভাপতির বক্তব্যে ফিল্ডওয়ার্কের সমন্বয়ক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি জসীম উদ্দিন হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. এম শাহীন খান বলেন, পেশাগত বিষয় হওয়ায় সমাজকর্মের শিক্ষার্থীদের জন্যে ব্যবহারিক প্রশিক্ষণ গ্রহণ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এ কারণে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও আমরা শিক্ষার্থীদের ঢাকা শহরের সমাজকল্যাণমূলক সেবা প্রদানকারী এজেন্সিতে শিক্ষার্থীদের লটারীর মাধ্যমে নির্বাচন করে ব্যবহারিক প্রশিক্ষণের জন্য প্লেসমেন্ট দেয়া হয়েছে।  আশা করছি ফিল্ডে ষাট কর্মদিবস কাজ করার মধ্য দিয়ে শিক্ষার্থীগণ তাদের তাত্ত্বিক জ্ঞানকে বাস্তবে কাজে লাগানোর সুযোগ পাবে যা তাদের পেশাগত জীবনে কাজ করার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে।

অধ্যাপক শাহীন জানান, শিক্ষার্থীরা ঢাকা শহরের ১৯টি সমাজসেবা বিষয়ক এজেন্সিতে আগামী রবিবার (১১ মে) থেকে কাজ শুরু করবেন যার ব্যাপ্তি থাকবে ৬০ কর্মদিবস। বিশ্ববিদ্যালয় ও এজেন্সি তত্ত্বাবধায়কের যৌথ তত্ত্বাবধানে শিক্ষার্থীরা তাদের পেশাগত জ্ঞান ও দক্ষতা অর্জন করবেন। শিক্ষাথীদের প্রতি কর্ম দিবসে সকাল ৯ টা থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত ব্যবহারিক প্রশিক্ষণ গ্রহণ করবেন। প্রতি সপ্তাহে ১ দিন ইন্সটিটিউটটের শিক্ষকের সাথে তত্ত্বাবধানমূলক সভায় মিলিত হয়ে প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা নিয়ে কাজ করবেন শিক্ষার্থীরা।

ওরিয়েন্টেশনে ইন্সটিটিউটটের ১২ জন শিক্ষক ফিল্ড ওয়ার্ক বিষয়ে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন দিকনির্দেশনা মূলক বক্তব্য রাখেন। এর মধ্যে রয়েছেন অধ্যাপক ফজলে খোদা, অধ্যাপক মাহবুবা সুলতানা, অধ্যাপক গোলাম রব্বানী, অধ্যাপক শেখ তৌহিদুল ইসলাম, অধ্যাপক শাহানা নাসরীন, সহযোগী অধ্যাপক মুহাম্মদ মাইনউদ্দিন মোল্লা, সহযোগী অধ্যাপক অনুরাধা বর্ধন, সহযোগী অধ্যাপক মো. তৌহিদুল হক, সহযোগী অধ্যাপক সাইদুর রহমান, প্রভাষক শাহজাহান আলী ও প্রভাষক রনি মৃধা। এছাড়াও মুন ফ্লাওয়ার অটিজম ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক মো. মফিজুল ইসলাম বক্তব্য প্রদান করেন।


মন্তব্য