বেগম জিয়ার স্বাস্থ্য অবনতি; রাবি জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরামের উদ্বেগ

রাবি
  © লোগো

বেগম খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের অবনতিতে উদ্বেগ জানিয়ে সংবাদ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরাম রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) শাখা। মঙ্গলবার (২৫ জুন) ফোরামের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি প্রফেসর ড. মো. রেজাউল করিম ও সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আমীরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ উদ্বেগ প্রকাশ করেন তারা।বিজ্ঞপ্তিতে সংগঠনটির নেতাকর্মীরা বলেন, "জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরাম রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা গভীর উদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করছে যে, বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের মহান ঘোষক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের সহধর্মিনী বেগম খালেদা জিয়াকে সুচিকিৎসা থেকে বঞ্চিত করে পরিকল্পিতভাবে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেয়ার গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত বর্তমান সরকার। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মিথ্যা, বানোয়াট ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত মামলায় অভিযুক্ত করে কারান্তরীণ ও বর্তমানে গৃহবন্দী রাখা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন সময়ে তাঁর সকল কর্মকান্ড এবং দিকনির্দেশনা দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতির জন্য ছিল মাইলফলক।

নেতাকর্মী আরো বলেন, দূর্যোগ ও আপদকালীন সময়ে তাঁর নেতৃত্বে পরিচালিত ব্যবস্থাপনা ছিল প্রশংসনীয়। আদর্শবাদী রাজনীতি চর্চা এবং দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ গড়ায় তাঁর অবদান চিরস্মরণীয়। সর্বোপরি  বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদ, স্বাধীনতা ও সার্ভভৌমত্ব রক্ষায় তাঁর অবদান এক অনুসরণীয় দৃষ্টান্ত। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য যে, এই মহান নেত্রী আজ ন্যায় বিচার বঞ্চিত; গুরুতর অসুস্থতা সত্ত্বেও তাঁকে সুচিকিতসার জন্য দেশের বাইরে যেতে দিচ্ছে না এই প্রতিহিংসা পরায়ন অবৈধ সরকার। বেগম জিয়ার স্বাস্থ্য বর্তমানে অত্যন্ত ঝুকিপূর্ণ বলে তাঁর চিকিৎসকরা ইতোমধ্যে জানিয়েছেন। সামাজিক ও রাজনৈতিক অঙ্গনে এ নিয়ে ব্যাপক আলোচনার পাশাপাশি দেশবাসী আজ উদ্বিগ্ন। 

এমতাবস্থায়, গণতন্ত্রকামী সকল মানুষের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে সচেতন নাগরিক হিসেবে ‘জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরাম, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়’ এর শিক্ষকবৃন্দ বাকস্বাধীনতা, ন্যায়বিচার ও গণতন্ত্রবিহীন এই শ্বাসরুদ্ধকর পরিস্থিতি থেকে দেশকে মুক্ত করার অঙ্গিকার ব্যক্ত করছে এবং সাবেক প্রধানমন্ত্রী, জনগনের প্রাণপ্রিয় আপোষহীন নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে নিঃশর্ত মুক্তি দিয়ে অনতিবিলম্বে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাবার সকল বিধি নিষেধ প্রত্যাহারের জোর দাবী জানাচ্ছে।


মন্তব্য