এশিয়ায় বিলিয়নিয়রের সংখ্যায় বেইজিংকে পেছনে ফেলেছে যে শহর

বিলিয়নিয়ার
  © ফাইল ছবি

এশিয়ার কোন শহরে বিলিয়নিয়রের সংখ্যা বেশি? অনেকের মনেই দুবাই, কাতার অথবা সৌদি আরবের নাম আসতে পারে। যদি এমনটিই মনে আসে তাহলে বলতে হবে আপনি ভুল ভাবছেন। বিলিয়নেয়ারের সংখ্যার দিক দিয়ে চীনের রাজধানী বেইজিংকে ছাপিয়ে শীর্ষে উঠে এসেছে ভারতের বাণিজ্যিক শহর মুম্বাই। 

গবেষণা সংস্থা হুরুন ‘গ্লোবাল রিচ লিস্ট ২০২৪’ প্রতিবেদনে এমনটি দেখা গেছে। হুরুনের সবশেষ প্রতিবেদন অনুযায়ী, মুম্বাইয়ে বিলিয়নেয়ারের সংখ্যা ৯২ জন। আর বেইজিংয়ে ৯১ জন। 

এক বছরে মুম্বাইয়ে বিলিয়নেয়ার যুক্ত হয়েছে ২৬ জন। ওদিকে বেইজিংয়ের বিলিয়নেয়ার কমেছে ১৮ জন। 

এদিকে বিলিয়নেয়ারের সংখ্যায় বৈশ্বিক তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে মুম্বাই। এ তালিকায় শীর্ষে রইয়েছে নিউইয়র্ক, যেখানে বিলিয়নেয়ারের সংখ্যা ১১৯ জন। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে লন্ডন। এই শহরে বিলিয়নেয়ারের সংখ্যা ৯৭ জন। 
 
হুরুনের প্রতিবেদনে, মোট ৩ হাজার ২৭৯ জন বিলিয়নেয়ারের তথ্য উঠে এসেছে । এর মধ্যে গত বছরের তালিকায় নতুন করে যুক্ত হয়েছেন ১৬৭ জন। ৮১৪ জন বিলিয়নেয়ার নিয়ে বৈশ্বিক তালিকায় শীর্ষে রয়েছে চীন। অবশ্য একই সময়ে দেশটিতে ১৫৫ জন বিলিয়নেয়ার তালিকা থেকে ছিটকে পড়েছেন। অন্যদিকে ভারতে নতুন করে ১০০ জন বিলিয়নেয়ার যুক্ত হয়েছেন।

হুরুনের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ভারত ২০২৩ সালে অর্থনৈতিকভাবে শক্তিশালী বছর পার করেছে।  দেশটির অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিও রেকর্ড সর্বোচ্চে পৌঁছেছে। বিলিয়নেয়ারের সংখ্যায় ভারতে এ ঊর্ধ্বগতি দেশটির অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা ও আস্থার প্রতিফলন বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। এর মধ্যে মুম্বাইকে ক্রমবর্ধমান সমৃদ্ধির প্রতীক হিসেবে দেখা হচ্ছে।

বিলিয়নেয়ার বসবাস করে এমন ১০ শীর্ষ শহরের তালিকায় এবার যুক্ত হয়েছে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লি।  বরাবরের মতো শীর্ষ ধনীর তালিকায় প্রথমে রয়েছেন ইলোন মাস্ক। দশম স্থানে রয়েছেন রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের চেয়ারম্যান মুকেশ আম্বানি।

বিলিয়নেয়ার সমৃদ্ধ ১০টি শহরের মধ্যে রয়েছে নিউইয়র্ক, লন্ডন, মুম্বাই, বেইজিং, সাংহাই, শেনজেন, হংকং, মস্কো, নয়াদিল্লি ও সান ফ্রান্সিসকো।


মন্তব্য